ফরমালিনযুক্ত টমেটো বিক্রি ৮০ থেকে ১০০ টাকায়!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৩ জুলাই: দিন দিন বেড়েই চলছে চিনির দাম। বাজারে ডাল ও ব্রয়লার মুরগির দাম কিছুটা কমলেও ঈদের আগে থেকে চড়তে থাকা চিনির দাম এখনও ঊর্ধ্বমুখী। কয়েক দফা বেড়ে এখন প্রতি কেজি চিনি বিক্রি হচ্ছে ৭০-৭৫ টাকায়। খুচরা বাজারে কোথাও কোথাও তা ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। গতকাল রাজধানীর কাওরানবাজার, পান্থপথ, হাতিরপুল ও বিজয় সরণি বাজারসহ কয়েকটি বাজারে গিয়ে এ দাম দেখা যায়।tamato
ব্যবসায়ীরা বলছেন, পাইকারি দাম বাড়ায় খুচরায় চিনিরও দাম বেড়েছে। ৭০/৭২ টাকার নিচে বিক্রি করা যাচ্ছে না। পাইকাররা বলছেন, গত দুই সপ্তাহে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে কয়েকটি মিল বন্ধ ছিল। যে কারণে সরবরাহ কমে গেছে। সরবরাহ কমায় দামও বেড়েছে।
কাওরানবাজারের মুদি দোকানি মাহফুজুর রহমান বলেন, গত কয়েকদিন ধরে চিনির দাম অনেক চড়া। শুধু বাড়ছে। ৩৩শ’ টাকায় চিনির বস্তা কিনে ৭০ থেকে ৭২ টাকা কেজি বিক্রি না করলে লাভ থাকে না। এদিকে শিম শীতকালীন সবজি হলেও এখনই পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। তবে ক্রেতাকে অতিরিক্ত মূল্য দিয়ে কিনতে হচ্ছে। প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা।
গত এক সপ্তাহে রাজধানীর বাজারগুলোতে শিমের কেজি ১০০ টাকার নিচে বিক্রি হতে দেখা যায়নি। এদিকে দাম কমেছে ব্রয়লার মুরগি, ডাল ও আদার। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৩৫ থেকে ১৫০ টাকায়।
গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ১৫০ থেকে ১৬৫ টাকা কেজি দরে। মান ভেদে প্রতি কেজি আদা বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ১৪০ টাকায়। যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৬০ থেকে ১৫০ টাকা কেজি দরে। প্রতি কেজি দেশি মশুর ডাল বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকায়। এক সপ্তাহ আগে যে ডাল বিক্রি হয়েছে ১৪০ টাকা কেজি দরে। মুগডাল ১০০ টাকা থেকে ১১০ টাকা কেজি, খেসারি ডাল ৭৮ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। টিসিবি’র বাজার দরের তালিকায় দেখা যায়, কাঁচা সবজির দাম বেশ চড়া। ৩০ টাকার নিচে ভালো মানের কোনো সবজি পাওয়া যাচ্ছে না।
রাজধানীর কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা যায়, বাজার ভেদে প্রতিকেজি টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৮০ থেকে ১০০ টাকা। বেগুনের কেজি ৪৫ থেকে ৫০ টাকা। ঝিঙে ৪০ থেকে ৫০ টাকা। করলা ৪০ থেকে ৫০ টাকা। চিচিঙ্গা ৩৫ থেকে ৪৫ টাকা। মুখী কচু ৩৫ থেকে ৪৫ টাকা। ঢেঁড়শের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪৫ টাকায়, পটল ৩৫ থেকে ৪৫ টাকায়। ধুন্দলের কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪৫ টাকায়। শসার কেজি ৩৫ থেকে ৫০ টাকা। প্রতি কেজি কাঁচামরিচ বিক্রি হচ্ছে ৫০ থেকে ৬০ টাকায়। পেঁয়াজের কেজি ৩০ থেকে ৪০ টাকা। আলুর বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*