প্রধানমন্ত্রীর এটুআই পদ্ধতির আলোকে তথ্যসেবাপত্র পেতে চান এক উত্তরসূরী

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৭ আগস্ট ২০১৯ ইংরেজী, বুধবার: ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়নের পদ্ধতি হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর ডিজিটাল এটুআই প্রোগ্রামের আলোকে অব্যাহত থাকা উন্নয়নধারার অগ্রগতির মাধ্যমে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ নামক স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্রকে বিশ্বের উন্নতরাষ্ট্রের সারিতে দাঁড় করানোর সুলক্ষ্য নিয়ে প্রশংসিত থাকা জাতীয় তথ্যবাতায়ন বা ডিজিটাল এটুআই প্রকল্পের আলোকে সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন পর্যায়ের সম্পত্তির সঠিক মালিকানার চূড়ান্ত সত্যতা যাচাইয়ের প্রাতিষ্ঠানিক অগ্রগতি প্রতিবেদন সংক্রান্ত তথ্যসেবাপত্র সরবরাহ পাওয়ার জন্য এক ওয়ারিশান সনদপত্রভূক্ত এক উত্তরাধিকারী হিসেবে এক আবেদনকারী আশাবাদ প্রকাশ করেছেন।

জানা যায়, উক্ত তথ্যসেবাপত্র চেয়ে ৭ ও ২৬ /০৯/২০১৬ইং তারিখে চট্টগ্রাম সিটি এলাকার সরকারী ৫টি অফিসে, ২০/০৩/২০১৭ইং তারিখে চকরিয়াসহ কক্সবাজার এলাকার সরকারী ০৬টি অফিসে ও ২৮/০৩/২০১৭ইং তারিখে চন্দনাইশসহ পটিয়া এলাকার সরকারী ০৬টি অফিসে রেজিষ্ট্রী ডাকযোগে আবেদন পাঠানো হয়েছে। এছাড়াও ০৭ ও ২৬/০৯/২০১৬ইং তারিখের উক্ত রেজিষ্ট্রী ডাক নম্বরের বিভিন্ন আবেদনের উল্লেখ রেখে ১৩/০২/২০১৮ইং তারিখের দৈনিক এইবাংলা নামক পত্রিকায় “চট্টগ্রামের টেরিবাজারে মনসাবিগ্রহ মন্দিরের জায়গার মালিকানা কোনো অস্পষ্টতার প্রভাব থেকে মুক্তি পেতে অগ্রগতি প্রতিবেদন কামনা” মর্মে এক সংবাদের কপি ০১/১০/২০১৮ইং তারিখে বাংলাদেশ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বরাবর ০৯৪নং রেজিষ্ট্রী ডাকযোগে পাঠানোর পর তা ০২/১১/২০১৮ইং তারিখে দৈনিক নতুন দিন নামক পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে বলেও জানা যায়। এমতাবস্থায় ২০ ও ২৮ তারিখের রেজিষ্ট্রী ডাক নম্বরের উক্ত বিভিন্ন আবেদনের উল্লেখ রেখে ০৩/১০/২০১৭ইং তারিখে তথ্যসেবা প্রকল্পের মহাপরিচালক বরাবর ১১০৬১৯৬২৪২৪৩৮০ নং ইন্টারনেটযোগে পাঠানো আবেদনটি ২৯/১০/২০১৭ইং তারিখে cabsacy@cabinet.gov.bd, coxbazar@mopa.gov.bd, unopatiya@gmail.com নং ই-মেইল বরাবর পাঠানোর খবরটি যথাযোগ্য প্রকাশ ও প্রচারের জন্য ০৪/০৩/২০১৮ইং তারিখে https://web.facebook.com/moi.gov.bd?-rdc=1&-rdr নং ফেইসবুক বরাবর পাঠানো হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে। অবশ্য কোনো সুনিশ্চিত ডকুমেন্টারী মিডিয়ার মাধ্যমে কোনো প্রামাণ্য তথ্যসেবাপত্র উক্ত আবেদনকারীর স্থায়ী ঠিকানা বরাবর সরবরাহের কোনো প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থার সুসংগত অবস্থান সম্পর্কে জানা যায়নি। উক্ত উত্তরসূরীর তথ্যসেবার আবেদনের ব্যাপারে ০৩/০২/২০১৯ইং তারিখের newsgarden24.com মিডিয়ার মুক্তমত কলামসহ ফেইসবুকে, ১৬/০৫/২০১৯ইং তারিখের facebookdailynatundin পত্রিকার ০৩নং পৃষ্ঠায় এবং ২৫ ও ২৬/০৫/২০১৯ইং তারিখের দৈনিক এইবাংলা পত্রিকার যথাক্রমে ০১পৃষ্ঠায় ও ০৮নং পৃষ্ঠায় খরব বেরিয়েছে বলে সূত্রে উল্লেখ রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*