প্রকৌশল ও পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তা ও দায়িত্বশীলদের সাথে সিটি মেয়রের মতবিনিময়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন দায়িত্ব গ্রহণের প্রাক প্রস্তুতি হিসেবে ১৮ মে সকালে নগরীর থিয়েটার ইনষ্টিটিউট DSC_0045মিলনায়তনে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রকৌশল বিভাগ (সিভিল, যান্ত্রিক ও বিদ্যুৎ) এবং পরিচ্ছন্ন বিভাগের কর্মকর্তা ও দায়িত্বশীলদের সাথে মতবিনিময় করেন। মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী মোহাম্মদ শফিউল আলম। প্রধান অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও জলাবদ্ধতা নিরসনে কর্মপরিকল্পনা প্রনয়ন করে বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্টদের দায়িত্ব প্রদান করেন। IMG_0001তিনি বলেন, নাগরিক স্বার্থে রাত ১০টা থেকে ভোর ৪টার মধ্যে আবর্জনা ও বর্জ্য অপসারণ করতে উদ্যোগ নেয়া হবে। মেয়র বলেন, নগরীকে সি সি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে। কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের কাজে আন্তরিকতা, শতভাগ সততা প্রত্যাশা করে সিটি মেয়র বলেন, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অতীতের কাজ কর্মের বিষয়ে আমার কিছুই বলার নেই, আজ থেকে সকলকে শতভাগ সততার সাথে স্ব স্ব অবস্থান থেকে দায়িত্ব ও কর্তব্য যথাযথভাবে পালন করতে হবে। দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে আন্তরিকতা ও সততার ঘাটতি দেখা গেলে তার পরিণাম ভোগ করার জন্য সংশ্লিষ্টদের প্রস্তুত থাকতে হবে। মেয়র বলেন, বর্ষা দ্বার প্রান্তে, বর্ষা মৌসুমেIMG_0002 নগরবাসীর ভোগান্তি কমাতে প্রকৌশল ও পরিচ্ছন্ন বিভাগকে সম্মিলিত পরিকল্পনা দ্রুত বাস্তবায়ন করে ভরাট নালা-নর্দমার মাটি আবর্জনা অপসারণ করে পানি নিস্কাষণের সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে। প্রয়োজনে রাত-দিন কাজ করতে হবে। খাল-ছড়া, নালা-নর্দমার ধারণ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। মেয়র বলেন, আমাদের জনগণ ৫ বছরের জন্য দায়িত্ব দিয়েছেন। অপর দিকে প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের চাকুরীর মেয়াদ পর্যন্ত দায়িত্ব ও কর্তব্য। উভয়ের সম্মিলিত প্রয়াস, মেধা, বুদ্ধি ও পরিকল্পনায় জবাবদিহীতা এবং স্বচ্ছতার সাথে দায়িত্ব পালন করতে হবে। মেয়র বলেন, সীমাবদ্ধতা ও প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করেই পরিকল্পিত নগরায়ন করতে চাই। মেগাসিটির আদলে দৃষ্টিনন্দন, পরিবেশবান্ধব বন্দর নগরী গড়তে চাই, চট্টগ্রামের হারানো গৌরব পুনরুদ্ধার করতে চাই। তিনি বলেন, দেশের অতীব গুরুত্বপূর্ণ অঞ্চল চট্টগ্রামে নাগরিকদের সেবা শতভাগ নিশ্চিত করতে চাই। এ ক্ষেত্রে নগরবাসী সহ সর্বস্তরের নাগরিকদের সার্বিক সহযোগিতা তিনি কামনা করেন। মতবিনিময় সভায় প্রকৌশল (সিভিল, যান্ত্রিক, বিদ্যুৎ), পরিচ্ছন্ন বিভাগের যাবতীয় তথ্য মেয়রের নিকট উপস্থাপন করা হয়। মতবিনিময় সভায় ভারপ্রাপ্ত মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ হোসেন, যান্ত্রিক স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি, কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনী, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা স্ট্যান্ডিং কমিটির সভাপতি ও কাউন্সিলর হাজী নুরুল হক, সচিব রশিদ আহমদ বক্তব্য রাখেন। মতবিনিময় সভা সঞ্চালনের দায়িত্বে ছিলেন সিটি মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মঞ্জুরুল ইসলাম। এছাড়া মতবিনিময় করেন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এয়াকুব নবী, মো. রফিকুল ইসলাম, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আহমদুল হক, প্রধান পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা শেখ শফিকুল মান্নান ছিদ্দিকী, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ স্থপতি এ কে এম রেজাউল করিম, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. মাহফুজুল হক, নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মনিরুল হুদা, মো. আবু ছালেহ, মো. কামরুল ইসলাম, পরিচ্ছন্ন কর্মকর্তা মোরশেদ আলম, সহকারী প্রকৌশলী ঝুলন কুমার দাশ, মো. জামাল উদ্দিন, মো. রেজাউল বারী, মীর্জা ফজলুল কাদের, সুদেব বসাক, আবু সাহাদাৎ মো. তৈয়ব, অসীম বড়ুয়া, উপ সহাকারী প্রকৌশলী মশিউজ্জামান সিদ্দিকী পাভেল, পরিচ্ছন্ন সুপারভাইজার মাহফুজুল হক, দলপতি মোহাম্মদ শফিসহ অন্যরা। মতবিনিময় সভায় সিটি ম্যাজিস্ট্রেট নাজিয়া শিরিন, জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবদুর রহিম সহ সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*