পোল্ট্রি শিল্পের জন্য আধুনিক মুরগী জবাইখানা নির্মাণ হবে: মেয়র

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার: চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন মানুষে মানুষে চিন্তার ভিন্নতা থাকতে পারে, কিন্তু সমষ্টির ও দেশের স্বার্থে সকলের মধ্যে চিন্তার ঐক্যের প্রয়োজন। তাহলে দেশ এগুবে। বিদেশে গেলে কাজের উন্নতি দেখলে, আমরা এখনো তাদের কাছ থেকে কত পিছিয়ে আছি তা উপলব্ধি করতে পারি। আমার স্বপ্ন আছে পোল্ট্রি শিল্পের জন্য আধুনিক মুরগী জবাইখানা নির্মাণের। একনেকে অনুমোদন হলে শিঘ্রই এর কাজ শুরু করবো। তিনি আজ বুধবার নগর ভবনে কে বি আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে মাল্টি স্টেক হোল্ডারস কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। ইউকে এইড, ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় প্রকাশ প্রকল্পের কারিগরী সহযোগিতায় পোল্ট্রি সেক্টরে সুশাসন প্রকল্প, কনজ্যুমারস এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ক্যাব) চট্টগ্রাম এই কর্মশালার আয়োজন করে। কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগের সভাপতি এস এম নাজের হোসাইন। এতে পোল্ট্রি সেক্টরে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে একটি সচিত্র প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. সেতু ভুষন দাশ ও ক্যাব চট্টগ্রাম বিভাগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরী। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন বিট্রিশ কাউন্সিল প্রকাশ প্রকল্পের সমন্বয়কারী শ্যামল চাকমা। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চসিকের সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম, আবিদা আজাদ, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক ছগির আহম্মদ, বনফুল গ্র“পের চেয়ারম্যান ও চেম্বার পরিচালক আবদুল মোতালেব, চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ প্রমুখ। এতে উপস্থিত ছিলেন ক্যাব চট্টগ্রাম মহানগর সভপতি জেসমিন সুলতানা পারু, সম্পাদক অজয় মিত্র শংকু, যুগ্ম সম্পাদক এ এম তৌহিদুল ইসলাম, মো. শাহীন চৌধুরী, মো. জানে আলম, বিভাগীয় সমন্বয়কারী মো. জহিরুল ইসলাম, ফারহানা আক্তার, হারুন গফুর ভূইয়া, জান্নাতুল ফেরদৌস, সেলিম জাহাঙ্গীর, মো. আলমগীর বাদশা, সেলিম সাজ্জাদ ও রুবী খাঁন প্রমুখ।
প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা সেতু ভুষন দাশের প্রতিবেদনে বাজার নিয়ন্ত্রণ আইন বিধি, জাতীয় পোল্ট্রি উন্নয়ন নীতিমালা ও কিভাবে পরিস্কার, জীবানুমুক্ত, নির্ভেজাল, দুর্গন্ধমুক্ত খাঁটি নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা যায় সে বিষয়ে আলোচনা করেন। এতে দেশের ১৭ কোটি মানুষের প্রাণীজ আমিষের যোগানে পোল্ট্রি সেক্টর কি ভূমিকা রাখছে তা উঠে আসে। তিনি পোল্ট্রি খাদ্য নিরাপদ উৎপাদন, বিপণন ও পোল্ট্রি মাংসের নিরাপদ করার জন্য সরকারি-বেসরকারি উদ্যোগের পাশাপাশি ভোক্তাদের সচেতন হওয়ার ওপর জোড় দেন। এই প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা মানুষের মাঝে নিরাপদ খাদ্য বিশেষ করে পোল্ট্রি মাংস নিশ্চিত করতে সরকারি মান তদারকি প্রতিষ্ঠান, জেলা প্রশাসক, প্রাণী সম্পদ অফিস, বিএসটিআই, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন, ভোক্তা সংরক্ষন অধিদপ্তর ও ক্যাবের ঐক্যবদ্ধ সমন্বিত উদ্যোগ প্রয়োজন বলে মত দেন। তার প্রতিবেদন সূত্রে জানা যায় সুস্থ সবল থাকার জন্য প্রতিদিন একজন মানুষের ১২০ গ্রাম মাংস, ২৫০ মিলি. দুধ ও ১টি ডিম খাওয়া প্রয়োজন। তাই পোল্ট্রি খাদ্য ও মাংস নিরাপদ করা আজ সময়ের দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*