পেটপুরে খেয়েও ওজন কমানোর পরামর্শ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ ফেব্র“য়ারী: ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে অনেকেই দুপুরে ভাত খাওয়াটা ছেড়ে দেন। যেটা বেশ কষ্টকর। ভাত খাওয়া ছেড়ে লাভটা তো কিছু হয় না, মনটা শুধু খাই খাই করতে থাকে। ফলে অনেক এটা-সেটা খাওয়া হয়ে যায়।
ফলাফল যা হওয়ার হয় ঠিক তাই হয়। ওজন আর নিয়ন্ত্রণে থাকে না। নিশ্চিন্তে দুপুরে পেটপুরে ভাত খান শুধু এই টিপসগুলি মনে রাখুন। তাহলে আপনি স্লিম হবেন।
১. যেটুকু ভাত খাবেন, ঠিক সম পরিমাণ কাঁচা সবজির সালাদ খাবেন। অর্থাৎ, আপনি যদি এক কাপ ভাত খান, তাহলে অবশ্য এক কাপ সালাদ খাবেন। খেতেই হবে। এই সালাদে থাকতে পারে শসা, টমেটো, বাঁধাকপি, গাজর ইত্যাদি। খুব সামান্য লবণ, কোন তেল দেবেন না।pat
২. ভাতের সাথে ডাল খাবেন। মাছ বা মাংস যে কোন একটা খাবেন। সালাদ, ডাল ইত্যাদি আপনার ভাত খাওয়ার পরিমাণ এমনই থেকেই কমিয়ে দেবে ও বেশি যেন খেয়ে না ফেলেন সেটা নিয়ন্ত্রণ করবে।
৩. ভাত খেতে শুরু করার আগে প্লেটে খাবার মেপে নেবেন। এবং যেটুকু নেবেন ঠিক সেটুকুই খাবেন। বারবার প্লেটে খাবার তুলবেন না।
৪. দুপুরে অনেকেই খাওয়ার পর গোসল করেন। এই কাজটি মোটেও করবেন না। এতে মেটাবোলিজম হার কমে যায় এবং খাবার হজম না। ওজন বাড়ে দ্রুত।
৫. ভাত খাওয়ার পর ঘুমাবেন না। একেবারেই না এবং এক জায়গায় বসেও থাকবেন না। ভাত খাবার আধা ঘণ্টা পর ২০ থেকে ৩০ মিনিট হাঁটাহাঁটি করে নিন।
৬. ভাত খেয়ে ওঠার পরপরই চা বা কফি পানের অভ্যাস থাকে অনেকের। এই অভ্যাসটিও ত্যাগ করতে হবে।

৭. রাইস কুকারে রান্না করা ভাত খাবেন না। ভাতের সাথে কোনও আলু ভর্তা বা আলুর তরকারি খাবেন না।
৮. ভাত খেতে খেতে কিংবা ভাত খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পানি খাবেন না। খাওয়ার কমপক্ষে ৩০মিনিট পর পানি খান।
ভাতে কোন বাড়তি তেল নেই বরং ভাত বেশ স্বাস্থ্যকর একটি খাবার। আপনি যদি উপরে বর্ণিত নিয়ম মেনে ভাত খান তাহলে পেট ভরবে, মন ভরবে কিন্তু ওজন বাড়বে না মোটেও। বরং ওজন কমবে যদি এর সাথেই নিয়মিত এক ঘণ্টা করে ব্যায়াম করতে যেতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*