পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের কাজ বন্ধ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৬ ফেব্র“য়ারী: নির্বাচন কমিশনের অনুমোদন ছাড়াই হঠাৎ করে জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) সংশোধনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ। জানা গেছে, এই অনুবিভাগ নির্বাচন কমিশনের অধীনস্থ হলেও এ সিদ্ধান্তের ব্যাপারে কমিশনের কোনো অনুমোদন নেয়া হয়নি।id Card
আর পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা কয়েক হাজার মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছেন। এদের অনেকেরই বিদেশে যাওয়ার এবং চাকরির জন্য জরুরিভিত্তিতে এনআইডি সংশোধনের প্রয়োজন। কিন্তু আবেদন করার সুযোগ না পেয়ে তারা হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন।
অনুবিভাগ থেকে জানানো হয়েছে, ‘পরিচয়পত্র সংশোধনের কাজ এখন উপজেলা পর্যায়ে সম্পন্ন হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে এ সংক্রান্ত কোনো আবেদন গ্রহণ করা হবে না।’ যদিও দেশের অনেক উপজেলা নির্বাচন অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারী সংকট রয়েছে। মাঠ পর্যায়ের সার্ভার স্টেশনগুলো সচল হয়নি। মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত সারা দেশে ইউপি নির্বাচন নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিস ব্যস্ত সময় কাটাবে। ফলে পরিচয়পত্র সংশোধন নিয়ে নাগরিকদের চরম ভোগান্তির আশংকা রয়েছে।
এ বিষয়ে ইসি সচিব মো. সিরাজুল ইসলাম জানান, ১৫ ফেব্রুয়ারি থেকে এনআইডি সংশোধনের জন্য সবাইকেই সংশ্লিষ্ট থানা অথবা উপজেলা নির্বাচন কার্যালয়ে আবেদন করতে হবে। সেখান থেকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাইয়ের পরেই জাতীয় তথ্য ভা-ার থেকে তথ্য সংশোধন করার সুযোগ পাওয়া যাবে। তিনি বলেন, ইসির এনআইডি উইংয়ে অতিরিক্ত চাপ সামলাতেই এই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।
অপরদিকে, জাতীয় পরিচয়পত্র হারিয়ে গেলে সাধারণ ও জরুরি ফি জমা দিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে ঢাকা থেকে উত্তোলনের সুযোগ রয়েছে। জরুরি ফি দিলে আইনানুযায়ী ৩ থেকে ৭ কার্যদিবসের মধ্যে তা দেয়ার নিয়ম রয়েছে। কিন্তু তা মানছে না জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ (এনআইডি উইং)। টাঙ্গাইলের গোপালপুরের একজন হারানো এনআইডি তোলার জন্য সোনালী ব্যাংকে ৩৬৮ টাকা জমা দেন। নিয়ম অনুসরণ করে আবেদন জমা দিলে আগামী ২৮ ফেব্রুয়ারি এনআইডি দেয়া হবে বলে রিসিট দেয়া হয়। ওই ভুক্তভোগী জানান, টাঙ্গাইল থেকে ঢাকায় এসে জরুরি ভিত্তিতে কার্ড নেয়ার জন্য সব প্রক্রিয়া অনুসরণ করে আবেদন করেন। কিন্তু সাধারণ ফি গ্রহণ করলে যে সেবা দেয়া হয়, জরুরি ফি দিয়েও তেমনি সেবা পাওয়া যাচ্ছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: