‘পূর্ণিমার চাঁদের আলোতে কলঙ্ক থাকলেও মোহাম্মদ (সাঃ) এর চরিত্রে ছিল না বিন্দুমাত্র কলুষতার চিহ্ন’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০১ ডিসেম্বর ২০১৮ ইংরেজী, শনিবার: ১২ রবিউল আউয়াল পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী এবং একই সাথে মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর ওফাত দিবস। দিবসটি একই সঙ্গে আনন্দের এবং দুঃখেরও। এই দিনেই আমাদের প্রিয় নবী, শেষ নবী, নবীকুলের শিরোমণি, বিশ্বমানবতার আশীর্বাদ হযরত মুহাম্মদ (সাঃ)-এর জন্ম ও মৃত্যু দিবস। ১২ রবিউল আউয়ালকে মুসলিম বিশ্ব মহানবীর জন্ম ও ওফাতের দিবস হিসেবে পালন করে থাকেন। পবিত্র এই দিনটিকে কেউ ঈদে মিলাদুন্নবী আবার কেউ কেউ সিরাতুন্নবী হিসেবে পালন করেন। মিলাদ ও সিরাত দুটি আরবি শব্দ। মিলাদ অর্থ জন্ম আর সিরাত শব্দের অর্থ জীবনচরিত। সুতরাং মিলাদুন্নবী (সাঃ) অর্থ নবীজির জন্ম আর সিরাতুন্নবী (সাঃ) এর অর্থ নবীজির জীবনচরিত। নবীজির শুভ জন্মকে স্মরণ করে যে অনুষ্ঠান হয় তাকে মিলাদুন্নবী (সাঃ) আর নবীজির সমগ্র জীবনচরিত আলোচনার জন্য যে অনুষ্ঠান তাকে সিরাতুন্নবী (সাঃ) মাহফিল বলা হয়। মিলাদুন্নবী (সাঃ) শিরোনামে যে মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় সেখানে রাসূলে পাক (সাঃ) এর জন্মবৃত্তান্ত অর্থাৎ তার জন্মদিনটাকে প্রধান্য দিয়ে আলোচনা হয়। অন্যদিকে সিরাতুন্নবী (সাঃ) শিরোনামে যে মাহফিল হয় সেখানে রাসূলে পাক (সাঃ) এর জন্ম থেকে শুরু করে পুরো জীবনীই আলোচনা করা হয়। কিন্তু এই সমস্ত কিছুর মধ্যেই নিহিত আছে শান্তি, মুক্তি ও নাজাতের বার্তা। তা নিয়ে পৃথিবীতে এসেছিলেন বিশ্বনবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)। তাঁর আগমনের কারণে পৃথিবীতে শান্তি প্রতিষ্ঠা হয়েছিল এবং আবারো যদি তার আদর্শকে বাস্তবায়ন করা যায়- তাহলে এ পৃথিবী আবারো শান্তিতে পরিপূর্ণ হবে। এখন এ দিবসটি পালন করতে গিয়ে কেউ কারো উপর জোর করে চাঁদা আদায় করে তা হবে রাসুলে করিম (সা:) এর আদর্শের পরিপন্থী। এখন কিছু কিছু জায়গায় এ ধরনের আচরণ লক্ষ্য করা যায়। যা আমাদের প্রত্যেকের উচিত পরিত্যাগ করা, নতুবা তা হবে আমাদের নবীর শানে বেয়াদবী। এগুলো থেকে মুসলিম সমাজকে বাঁচতে বিবেকবান সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। কিন্তু পূর্ণিমার চাঁদের আলোতে কলঙ্ক থাকলেও তাঁর চরিত্রে ছিল না বিন্দুমাত্র কলুষতার চিহ্ন। চাঁদ-সেতারাও তাঁর সৌন্দর্যের কাছে ছিল লজ্জিত। আকারে-আকৃতিতে জ্ঞানে-গুণে, স্বভাব-চরিত্রে তিনি অনন্য। তাঁর উত্তম চরিত্রের সার্টিফিকেট দিয়েছেন স্বয়ং মহান রাব্বুল আলামিন। তিনি পবিত্র কুরআনে বলেছেন, “তোমাদের জন্য আল্লাহর রাসূলের মধ্যে রয়েছে উত্তম আদর্শ।”

Leave a Reply

%d bloggers like this: