পুলিশের অস্বীকার, রাজধানীতে শিবির কর্মী আটক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৬ মে: রাজধানীতে বোরহান উদ্দিন নামের এক শিবির কর্মীকে আটকের পর পুলিশ অস্বীকার করছে বলে দাবি ছাত্রশিবিরের। শুক্রবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে ছাত্রশিবির এর প্রতিবাদ জানায়। শিবিরের দাবি, কোন কারণ ছাড়াইs রাজধানীর হাজারীবাগ এলাকার ৪৮ নাম্বার ওয়ার্ডের সিলেটি পাড়া থেকে শিবির কর্মী বোরহান উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করে আদাবর থানা পুলিশ। কিন্তু গ্রেফতারের পর ৪৮ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও এখন পর্যন্ত তাকে আদালতে হাজির করা হয়নি। আমরা বিশ্বস্ত সূত্রে জানতে পেরেছি গ্রেপ্তারকৃত শিবির কর্মী বোরহান উদ্দিনকে আদাবর থানায় পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে। প্রকাশ্য দিবালোকে গ্রেফতারের পর এখনো তাকে আদালতে হাজির না করায় নানা আশঙ্কার জন্ম দিয়েছে। তার উপর জুলুম নির্যাতন চালানো অথবা কোন অসৎ উদ্দেশ্য হাসিলের জন্যই বেআইনিভাবে তাকে আদালতে হাজির করা হচ্ছেনা বলে আমরা মনে করছি। এই অমানবিক আচরণে তার পরিবার গভীরভাবে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। কোন কারণ ছাড়াই অন্যায়ভাবে একজন ছাত্রকে গ্রেফতারের পর আদালতে হাজির না করা বাংলাদেশের প্রচলিত আইনের চরম লংঘন। আইনের রক্ষকদের এমন বেআইনি আচরণ কোন ভাবেই কাম্য নয়। এটি সংবিধান প্রদত্ত নাগরিক অধিকারের সুষ্পষ্ট লংঘন। কিন্তু শুধু রাজনৈতিক বিরোধীতার কারণে ছাত্রশিবির নেতাকর্মীদের প্রতি বিরুপ আচরণ করে যাচ্ছে সরকার ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর একটি অংশ। একটি নিয়মতান্ত্রিক সংগঠনের নেতাকর্মীদের উপর এমন নিস্পেষন মূলক অগণতান্ত্রিক আচরণ আইনের শাসনের প্রতি বৃদ্ধাঙ্গুলি প্রদর্শন ছাড়া কিছু নয়।
আদাবর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ শাহিনুর রহমান বলেন, বোরহান উদ্দিনকে গ্রেফতারের বিষয়টি আমার জানা নেই, তাকে আমার থানার কোন টিম গ্রেফতার করেছে তা আমি সঠিকভাবে বলতে পারছি না। তবে হাজারিবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বলেন, আমি এখন থানার বাহিরে আছি, সন্ধ্যার পর আপনার সাথে কথা বলবো।
নেতৃবন্দ বলেন, একটি বিশেষ মহলের ইশারায় ইতিমধ্যেই দেশের বিভিন্ন স্থানে অন্যায়ভাবে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়মিত এই বে আইনি কাজটি করে যাচ্ছে। এর আগেও এমন ভাবে গ্রেফতারের পর অনেক মেধাবী ছাত্রকে নির্যাতন করা হয়েছে। অনেককে বন্দুকযুদ্ধের নাটক সাজিয়ে হত্যা করা হয়েছে। যা আমাদের উদ্ধেগকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছে। সংগত কারণেই তার পরিবারের সাথে সাথে আমরাও তার জীবন নিয়ে শঙ্কিত। অবিলম্বে আমরা গ্রেফতারকৃত শিবির কর্মীর অবস্থান নিশ্চিত ও তাকে আদালতে হাজিরের মাধ্যমে আইনি প্রক্রিয়া অনুসরণ করার জন্য প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছি। আমরা হুশিয়ার করে বলতে চাই, শিবির কর্মী বোরহান উদ্দিনের জান-মালের কোন ক্ষতি হলে তার দায়ভার সরকার ও পুলিশ প্রশাসনকেই বহন করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*