‘পিলখানা হত্যাকান্ড পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, সোমবার: ২০০৯ সালে পিলখানায় বিডিআরের বিদ্রোহে মেধাবী সেনা কর্মকর্তাদের হত্যা একটি পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বলে মনে করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সেনাবাহিনীর মনোবল দুর্বল করতেই সেদিন ৫৭ সেনা কর্মকর্তাকে হত্যা করা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি। সোমবার সকালে বনানীতে পিলখানায় নিহতদের কবর জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ফখরুল। পিলখানা হত্যাকাণ্ডে এক দশক পালিত হচ্ছে আজ। বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘বাংলাদেশের নিরাপত্তাব্যবস্থা ধ্বংস করার ষড়যন্ত্রের কারণে ৫৭ সেনাসদস্যকে প্রাণ দিতে হয়েছিল। সেনাবাহিনীর মনোবলকে দুর্বল করতেই এ হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল।’ ফখরুল বলেন, ‘দিনটি জাতির ইতিহাসের জন্য একটি কলঙ্কময় দিন। দিনটিকে স্মরণ করে দেশের জনগণকে গনতন্ত্র পুনরুদ্ধারে শপথ নিতে হবে।’ পিলখানা হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্ত হয়নি বলে অভিযোগ করেন বিএনপি মহাসচিব। এই হত্যাকাণ্ডের সঠিক কারণ উদঘাটন করে এর সুষ্ঠু তদন্তের দাবি জানান তিনি। ২০০৯ সালের ২৫ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের ইতিহাসে একটি কালো দিন। এদিন রাজধানীর পিলখানায় বিডিআর সদরদপ্তরে সেনাবাহিনীর কর্মকর্তাদের কর্তৃত্বের অবসান, রেশন ও বেতনবৈষম্য দূর করাসহ বেশ কিছু দাবিতে সশস্ত্র বিদ্রোহ হয়। বিডিআরের প্রায় ১৫ হাজার সদস্য সম্মিলিতভাবে তাদের ঊর্ধ্বস্থানীয় ৫৭ জন কর্মকর্তাকে হত্যা করে। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে ১৫২ জনকে মৃত্যুদণ্ড, ১৬০ জনকে যাবজ্জীবন, ২৫৬ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ড, ২৭৮ জনকে খালাস দেয়া হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: