পাক-ভারত যুদ্ধ!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইংরেজী, বৃহস্পতিবার: ভারত নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরের চলমান পরিস্থিতির কারণে যেকোনো মুহূর্তে ‘আকস্মিক যুদ্ধ’র দিকে মোড় নিতে পারে বলে সতর্ক করে দিয়েছেন পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। অস্থিতিশীল এই অঞ্চল সফর করার জন্য জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক প্রধান মিশেল বাচেলেতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
বুধবার জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের অধিবেশনের ফাঁকে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন পাক এই মন্ত্রী। এ সময় কুরেশি বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন যে, ভারত এবং পাকিস্তান উভয় দেশই সংঘাতের পরিণতি সম্পর্কে জানে।


কিন্তু গত ৫ আগস্ট নয়াদিল্লি জম্মু ও কাশ্মীরের স্বায়ত্তশাসন প্রত্যাহার করে নেয়ার পর থেকে উত্তেজনা আরও বাড়ছে। যুদ্ধের শঙ্কা উড়িয়ে দেয়া যায় না উল্লেখ করে শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেছেন, ‘আপনি আকস্মিক একটি যুদ্ধের শঙ্কা বাতিল করতে পারেন না। বর্তমানে যে পরিস্থিতি চলছে, সেটি যদি অব্যাহত থাকে… তাহলে যেকোনো কিছুই হতে পারে।’
ভূ-স্বর্গখ্যাত এই অঞ্চলের বিশেষ মর্যাদা সংক্রান্ত ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর থেকেই কাশ্মীর কার্যত বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এখনও কাশ্মীরে মোবাইল ফোন নেটওয়ার্ক ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।
ভারত অধিকৃত কাশ্মীর পরিস্থিতি নিয়ে আন্তর্জাতিক তদন্ত শুরু করতে জাতিসংঘের মানবাধিকার পরিষদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন কুরেশি। পাক এই মন্ত্রী বলেছেন, তিনি জাতিসংঘের মানবাধিকারবিষয়ক প্রধান মিশেল বাচেলেতের সঙ্গে কথা বলেছেন। একই সঙ্গে পাক-ভারতের নিয়ন্ত্রণে থাকা উভয় কাশ্মীর সফর করতে বাচেলেতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।
প্রতিবেশি দুই দেশের মাঝে চলমান উত্তেজনা প্রশমনে দ্বিপাক্ষিক কোনো ধরনের আলোচনার সম্ভাবনা নাকচ করে দিয়েছেন কুরেশি। তিনি বলেন, ‘নয়াদিল্লির এই পরিবেশ এবং মানসিকতায় আমরা দ্বিপাক্ষিক আলোচনার কোনো সম্ভাবনা দেখছি না।’ তবে বহুপাক্ষিক কোনো ফোরাম কিংবা তৃতীয় পক্ষের মধ্যস্থতার প্রয়োজন হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন তিনি। কুরেশি বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি কোনো ভূমিকা পালন করে, তাহলে সেটি খুব গুরুত্বপূর্ণ হবে। কারণ এই অঞ্চলে তাদের যথেষ্ঠ প্রভাব আছে। সূত্র : ডন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*