পাকিস্তান বেড়া নির্মাণ করছে ইরান সীমান্তে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ জুন ২০১৯, সোমবার: পাচার ও জঙ্গী গোষ্ঠির কার্যক্রমের হাত থেতে রক্ষার জন্য ইরান সীমান্তে ৯৫০ কিলোমিটার বেড়া নির্মাণ করছে পাকিস্তান। নিরাপত্তা সংক্রান্ত সমস্যার কারণে সীমান্তে বেড়া নির্মাণের জন্য পাকিস্তানকে চাপ প্রয়োগ করছিল ইরান। এতদিন সীমান্তে এই এলাকাটুকু খালি অবস্থায় ছিল। এই প্রসঙ্গে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর কমান্ডার মোয়াজ্জাম জান আনসারি জানিয়েছেন, সীমান্তে কোনো বেড়া না থাকায় নিরাপত্তাজনিত সমস্যা মুখে পড়তে হত ইসলামাবাদকে। দীর্ঘদিন ধরেই এই বিষয়ে আলোচনা চলছিল। কিন্তু অবশেষে এই বেড়া দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। ইতিমধ্যে পাকিস্তান সংসদকে এই বিষয়ে বিস্তারিত জানিয়ে রিপোর্ট দিয়েছেন এই সেনা কর্মকর্তা। পাকিস্তান সংসদে দেওয়া তথ্যে মোয়াজ্জাম জানিয়েছেন, পাকিস্তানের বালুচিস্তান প্রদেশ এবং ইরানের সিস্তান-বালুচিস্তান প্রদেশ সংলগ্ন এলাকা দীর্ঘদিন বেড়া শূন্য অবস্থায় পড়ে ছিল। আর সেই কারণে সীমান্তে পাকাপাকিভাবে বেড়া দেওয়ার প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। তার দাবি, দীর্ঘ এই অঞ্চল যা কিনা ইরান এবং পাকিস্তানকে বিভুক্ত করছে তা সম্পূর্ণ বেড়া দিতে তিন থেকে চার বছর সময় লেগে যাবে। যদিও যুদ্ধকালীন পরিস্থিতিতেই এই কাজ চলবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। সেনাবাহিনীর এই কর্তা আরও জানান, ইরান সীমান্ত সংলগ্ন বালুচিস্তানে পাকিস্তান সামরিক বাহিনী সম্প্রতি একটি অভিযান চালিয়েছে। আর এই অভিযানে ১৫ জঙ্গি খতম হয়েছে। পাকিস্তান পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কোরেশি জানিয়েছেন, ইরান সীমান্তে সুরক্ষা ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে ছটি পদক্ষেপ নিয়েছে পাকিস্তান। ‘শান্তির সীমান্ত’ নামের প্রকল্পের আওতায় এই সমস্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সীমান্তের যেসব পথে জঙ্গি গোষ্ঠীগুলি অহরহ আনাগোনা করে সে সমস্ত জায়গায় বেড়া দেওয়ার একটি প্রকল্পও নেওয়া হয়েছে। পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গত এপ্রিল মাসে তেহরান সফর করেন। সে সময় ইরানি প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি বলেছিলেন দেশ দুটি ‘যৌথ র‌্যাপিড রিঅ্যাকশন ফোর্স’ গঠনে সম্মত হয়েছে। সীমান্ত ক্রমাগত বেড়ে চলা সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা করার লক্ষ্যেই এই ফোর্স গঠন করা হচ্ছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: