পল্টনে রাজপথে অবস্থান ইসলামী আন্দোলনের

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৮ ডিসেম্বর, রবিবার:
রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যার প্রতিবাদে ডাকা লংমার্চে বাধা পেয়ে রাজধানীর পল্টনে রাজপথে অবস্থান নিয়েছেন চরমোনাই পীরের দল ইসলামী আন্দোলনের নেতাকর্মীরা। বায়তুল মোকাররমের উত্তর পাশের রাস্তায় অবস্থান নেয়ায় আশেপাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সৃষ্টি হয়েছে প্রচন্ড যানজটের।
মিয়ানমারমুখী লংমার্চটি পুলিশের বাধার মুখে ঢাকা থেকে বের হতে পারেনি। পরে লংমার্চগামী নেতাকর্মীরা পুরানা পল্টনের আজাদ প্রোডাক্টের সামনে এসে অবস্থান নেন। এখানে ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ করে বক্তৃতা দিচ্ছেন ইসলামী আন্দোলনের নেতারা। লংমার্চে বাধা দেয়া তারা সরকারের সমালোচনা করেন।
এদিকে হাজার হাজার নেতাকর্মী রাজপথে অবস্থান নেয়া পল্টন ও আশেপাশের এলাকায় প্রচন্ড যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ভোগান্তিতে পড়েছেন সপ্তাহের প্রথম দিন বিভিন্ন কাজে বের হওয়া নগরবাসী।
ইসলামী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা রায়হান মুহাম্মদ ইবরাহিম ঢাকাটাইমসকে জানান, সকাল থেকে হাজারও কর্মী যাত্রাবাড়ীতে জড়ো হতে থাকলে আগে থেকে মোতায়েন করে রাখা বিপুলসংখ্যক পুলিশ সামনে যেতে বাধা দেয়। দীর্ঘক্ষণ তাদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করেও বিষয়টি সমাধানে আসা যায়নি। পরে নেতাকর্মীদের পল্টনে হাউজ বিল্ডিংয়ের পাশে জড়ো হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।
রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যা, ধর্ষণ, বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ বন্ধ এবং এর বিচার দাবিতে মিয়ানমার অভিমুখে লংমার্চের ডাক দেন চরমোনাই পীর মুফতি রেজাউল করিম। যাত্রাবাড়ী কাজলা ফ্লাইওভারের গোড়ায় জমায়েত শেষে সকাল সাড়ে ১০টায় এই লংমার্চ শুরু হওয়ার কথা ছিল।

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৮ ডিসেম্বর, রবিবার:
রোহিঙ্গা মুসলিমদের গণহত্যার প্রতিবাদে ডাকা লংমার্চে বাধা পেয়ে রাজধানীর পল্টনে রাজপথে অবস্থান নিয়েছেন চরমোনাই পীরের দল ইসলামী আন্দোলনের নেতাকর্মীরা। বায়তুল মোকাররমের উত্তর পাশের রাস্তায় অবস্থান নেয়ায় আশেপাশে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। এতে সৃষ্টি হয়েছে প্রচন্ড যানজটের।
মিয়ানমারমুখী লংমার্চটি পুলিশের বাধার মুখে ঢাকা থেকে বের হতে পারেনি। পরে লংমার্চগামী নেতাকর্মীরা পুরানা পল্টনের আজাদ প্রোডাক্টের সামনে এসে অবস্থান নেন। এখানে ট্রাকের ওপর অস্থায়ী মঞ্চ করে বক্তৃতা দিচ্ছেন ইসলামী আন্দোলনের নেতারা। লংমার্চে বাধা দেয়া তারা সরকারের সমালোচনা করেন।
এদিকে হাজার হাজার নেতাকর্মী রাজপথে অবস্থান নেয়া পল্টন ও আশেপাশের এলাকায় প্রচন্ড যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। ভোগান্তিতে পড়েছেন সপ্তাহের প্রথম দিন বিভিন্ন কাজে বের হওয়া নগরবাসী।
ইসলামী আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা রায়হান মুহাম্মদ ইবরাহিম ঢাকাটাইমসকে জানান, সকাল থেকে হাজারও কর্মী যাত্রাবাড়ীতে জড়ো হতে থাকলে আগে থেকে মোতায়েন করে রাখা বিপুলসংখ্যক পুলিশ সামনে যেতে বাধা দেয়। দীর্ঘক্ষণ তাদের সঙ্গে আলাপ আলোচনা করেও বিষয়টি সমাধানে আসা যায়নি। পরে নেতাকর্মীদের পল্টনে হাউজ বিল্ডিংয়ের পাশে জড়ো হওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।
রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যা, ধর্ষণ, বাড়ি-ঘরে অগ্নিসংযোগ বন্ধ এবং এর বিচার দাবিতে মিয়ানমার অভিমুখে লংমার্চের ডাক দেন চরমোনাই পীর মুফতি রেজাউল করিম। যাত্রাবাড়ী কাজলা ফ্লাইওভারের গোড়ায় জমায়েত শেষে সকাল সাড়ে ১০টায় এই লংমার্চ শুরু হওয়ার কথা ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*