‘নির্বাচন কমিশনার প্রধানকে মননশীলতার পরিচয় দিতে হবে’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২০ জুলাই ২০১৭, বৃহস্পতিবার: জাতিসংঘের, বাংলাদেশ ভিজিটিং এক্সপার্ট, সাবেক আইজিপি ড. এম এনামুল হক বলেন, একটা ভালো নির্বাচন করতে কি করা লাগবে, কি করা লাগবে না সেটা তফসিলের আগে থেকে কমিশনকে পর্যবেক্ষণ করা লাগবে। জিল্লুর রহমানের সঞ্চালনায় চ্যানেল আইয়ের নিয়মিত অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। এছাড়া ছিলেন ইতিহাসবিদ ড. আনোয়ার হোসেন।
ড. এম এনামুল হক বলেন, নির্বাচন কমিশনের আইনি ক্ষমতার কোন কমতি নাই, কিন্তু খালি আইনি ক্ষমতা থাকলে হবে না। আইনটি ঠিক মত ব্যবহার করছেন কিনা সেটা হলো আপনার নৈতিকতা। আইনে যে কাজটি আপনাকে করতে বলা হয়েছে। সেটা ঠিকভাবে না করলে আপনার নৈতিকতা চির ধরেছে।
নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব নেওয়ার পরেই রাজনীতিক দলগুলোকে সমানভাবে কাজ করতে পারছে কি না দেখতে হবে। নির্বাচন কমিশনার প্রধানকে মননশীলতার পরিচয় দিতে হবে।
এক প্রশ্নে জবাবে ড. এম এনামুল হক বলেন, নির্বাচন কমিশনার তফসিল ঘোষনার আগে রাজনীতিক দলগুলোকে কোন কিছু বলতে পারবে না বলেছে। তার সাথে আমি এক মত নই। কারণ সরকারী দল আইন লঙ্ঘন করছে একাধিকবার হলেও কিছু বলছে না। তাহলে নির্বাচন কমিশন তো টুটো জগন্নাথে পরিণত হবে। নির্বাচন কমিশন সংবিধানিক পদ তাই যেকোন বিষয়ে তারা সাজেশন দিতে পারে রাজনীতিক দলসহ, প্রশাসনকে। ক্ষমতা চলে আসলে কমিশন আর বলবে না এটা করা যাবে না। তখন কমিশন ক্ষমতা প্রয়োগ করবে। নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসছে মানে কমিশনের দায়িত্ব বেড়ে যাচ্ছে। এখন প্রয়োজনবোধে সাজেশন দিতে হবে, ভালোর জন্য উৎসাহ, মন্দের জন্য থামাতে হবে। কিন্তু নির্বাচন কমিশন যদি তফসিল ঘোষনার আগে কিছু করার নেই বলে, তাহলে আমি সাধারণ জনগণ হিসেবে একমত হতে পারলাম না। নির্বাচনে কিভাবে লেভেল প্লায়িং ফিল্ড করবেন কি? করবেন না। সেটা নির্বাচন কমিশনারের একান্ত বিষয়। আর কিভাবে ভালো নির্বাচন করা যাবে এখন থেকে কমিশন পর্যবেক্ষণ করবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: