নগর উত্তর শিবিরের ষান্মাসিক সদস্য সমাবেশ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৫ জুলাই ২০১৭, শনিবার: বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক ও কেতোয়ালী থানা জামায়াত আমীর ফয়সাল মুহাম্মদ ইউনুস বলেন মহান আল্লাহ আমাদেরকে তাঁর খেলাফতের দায়িত্ব দিয়ে এ পৃথিবীতে প্রেরণ করেছেন। এজন্য তিনি যুগে যুগে প্রত্যেক জাতির নিকট নবী-রাসূল পাঠিয়েছিলেন যারা পথহারা মানুষকে সঠিক পথের দিশা দিতেন। একই ভাবে মক্কার মরুর বুকে মানুষ যখন এক আল্লাহর দাসত্ব ভুলে অসংখ্য মূর্তি পূজা, জীবন্ত কন্যা সন্তান কবর দেয়া, একে অপরের মধ্যে হানাহানিতে লিপ্ত হয়েছিল ঠিক তখনই মহান প্রভু মানবজাতিকে হেদায়াত দেয়ার জন্য সর্বশেষ নবী হিসেবে হযরত মুহাম্মদ (স.) কে পাঠিয়েছিলেন। যিনি আরবের আইয়্যামে জাহেলিয়াতকে দূরীভূত করে এক শান্তির সমাজ কায়েম করতে সক্ষম হয়েছিলেন। সেই সাথে তাঁর পরে আর কোন নবী-রাসূল পৃথিবীতে আর পাঠাবেন না বলে জানিয়ে দেন। কিন্তু মানুষ শয়তানের ধোঁকায় পড়ে ¯্রষ্টার দেয়া দায়িত্ব ভুলে অন্ধকার পথে পরিচালিত হলে তাকে সু-পথে আনার দায়িত্ব শেষ নবীর উম্মত হিসেবে আমাদের উপর অর্পণ করেছেন। এ দায়িত্ব পালন না করার কারণে প্রত্যেককে শেষ বিচার দিনে কঠিন শাস্তির মুখোমুখি হতে হবে বলে হুঁশিয়ার করেন। এজন্য দিকভ্রান্ত মানব সমাজকে আল্লাহর দেয়া দায়িত্ব-কর্তব্য স্মরণ করিয়ে দিতে হবে আমাদেরকেই। এর মাধ্যমে আমরা পরকালের কঠিন শাস্তি থেকে মুক্তি লাভ করতে পারব। তাই তিনি প্রত্যেক শিবির নেতা কর্মীদের পরকালীন কঠিন বিচারে জবাবদিহিতা ও মুক্তি লাভের দৃঢ় মানসিকতা নিয়ে সকল ছাত্রের মাঝে দ্বীনের সঠিক দাওয়াত পৌঁছে দেয়ার আহ্বান জানান।
চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর শিবিরের ষান্মাসিক সদস্য বৈঠকে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আজ (১৫.০৭.’১৭) এসব কথা বলেন। নগর উত্তর সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম’র সভাপতিত্বে ও সেক্রেটারী এস কে সিকদার’র পরিচালনায় এতে আরো বক্তব্য রাখেন শিবির নেতা আ স ম রায়হান, কামাল হোসাইন, আমান উল্লাহ, কুতুব উদ্দীন, আহসান উল্লাহ প্রমুখ।
নগর উত্তর সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম বলেন সারা পৃথিবীতে ইসলামী আন্দোলনের কর্মীরা অনাকাংখিত পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে দ্বীনের কঠিন জিম্মাদারীর দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। বিরোধী শক্তিরা দুনিয়া থেকে ইসলামের আলো নিভিয়ে দেয়ার যে কঠিন চ্যালেঞ্জ জানিয়েছিল তারা বরাবরের মতোই সবখানে সরব। আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিতেও তার ব্যতিক্রম নয়। ইসলামের বিরোধীতাকারী তাদের অবৈধ ক্ষমতা প্রতিপত্তির জোর কাটিয়ে এদেশে মানবতার মুক্তির জন্যে কাজ করে যাওয়া দায়ীদের উপর চরম জুলুম অত্যাচার চালাচ্ছে। অত্যাচার-অনাচার যতই কঠিন হোক না কেন নিজেদের পবিত্র দায়িত্ব পালন করা থেকে পিছপা না হবার জন্য তিনি শিবির নেতা কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান। সে সাথে নতুন পন্থা ও কর্মউদ্যোগ নিয়ে শিক্ষাঙ্গনে সকল ছাত্রের নিকট ইসলামের আহ্বান পৌঁছিয়ে দিয়ে উপশাখা পর্যায়ে আরো মজবুতি অর্জনের নির্দেশনা দেন। সমাবেশে বছরের বিগত দিনে পরিচালিত সাংগঠনিক কার্যক্রম পর্যালোচনা করা হয়।

Leave a Reply

%d bloggers like this: