নওফেলের সমর্থনে জয়বাংলা শিল্পীগোষ্ঠীর আলোচনা সভা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৯ ডিসেম্বর ২০১৮ ইংরেজী, শনিবার: জয়বাংলা শিল্পী গোষ্ঠী চট্টগ্রামের উদ্যোগে ২৬ ডিসেম্বর ২০১৮ইং বুধবার সন্ধ্যায় কদম মোবারক এম.ওয়াই উচ্চ বালক-বালিকা বিদ্যালয়ে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলের সমর্থনে আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। শিল্পী ও সংগীত পরিচালক অচিন্ত্য কুমার দাশের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন বিশিষ্ট শিল্পী কাজল দত্ত, শিল্পী নারায়ণ দাশ, শিল্পী হানিফুল ইসলাম চৌধুরী। সজল দাশের সঞ্চালনায় ও বঙ্গবন্ধু শিল্পীগোষ্ঠী চট্টগ্রামের সাধারণ সম্পাদক গীতিকার মোহাম্মদ লিপটন এর সভাপতিত্বে এতে প্রধান অতিথির আসন অলংকিত করেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র, মিডিয়া ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সজল চৌধুরী। উদ্বোধক ছিলেন লায়ন ডা: আর.কে রুবেল,। প্রধান আলোচক ছিলেন প্রকৌশলী টি.কে সিকদার। বিশেষ আলোচক ছিলেন সাংবাদিক প্রশান্ত কুমার বড়–য়া, দক্ষিণ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা উজ্জ্বল ধর, সংগঠক প্রণব রাজ বড়–য়া, অধ্যক্ষ রতন দাশগুপ্ত, কবি আসিফ ইকবাল, সাংবাদিক রোজী চৌধুরী, সংস্কৃতিকর্মী দিলীপ সেনগুপ্ত। স্বাগত বক্তব্য রাখেন জয় বাংলা শিল্পীগোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি সজল দাশ। উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক দুলাল বড়–য়া, সংগঠক নোমান উল্লাহ বাহার, সাংবাদিক কামাল হোসেন, সংগঠক লাভলু চক্রবর্ত্তী অপূর্ব, ডা: রতন চক্রবর্ত্তী, সংগঠক শিমুল দত্ত, সংগীতশিল্পী সমীরন পাল, শিলা আক্তার ও মো: জাফর আলম প্রমুখ। প্রধান অতিথি সজল চৌধুরী বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আমরা দীর্ঘ আন্দোলন-সংগ্রামের মাধ্যমে লাখো দের রক্তের বিনিময়ে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় লাভ করি। আর তাঁরই সুযোগ্য কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বিশ্বমানবতার নেত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশে পরিণত হয়েছে। আগামী ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় একাদশ সংসদ নির্বাচনে শেখ হাসিনা মনোনীত প্রার্থীকে নৌকা প্রতীকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করে আবারো সরকার পরিচালনার দায়িত্ব প্রদান করার জন্য দেশবাসীর নিকট আকুল আবেদন জানান। শেখ হাসিনা মানে বাংলাদেশ, উন্নয়ন, অগ্রযাত্রা ও সমৃদ্ধি। উদ্বোধক ডা: লায়ন আর.কে রুবেল বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের শক্তি আজ একতাবদ্ধ। সুতরাং মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে উজ্জ্বীবিত এবং উন্নয়নের অগ্রযাত্রাকে সচল রাখতে চাইলে শেখ হাসিনার কোন বিকল্প নেই। সভার সভাপতি গীতিকার মোহাম্মদ লিপটন বলেন, শেখ হাসিনা বিজয়ী হলে উন্নয়নের চাকা গতিশীল থাকবে। আর পরাজিত হলে দেশে জঙ্গীবাদ, সন্ত্রাসবাদ ও পরাজিত শক্তির উত্থান ঘটবে। এমতাবস্থায় শেখ হাসিনাকে দল-মত-নির্বিশেষে ৩০ ডিসেম্বর নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে পুনরায় সরকার পরিচালনার দায়িত্ব অর্পণ করতে হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*