দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ থেকে বেরোতে পারছে না জাপান-রাশিয়া

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ডিসেম্বর ২৫, ২০১৬

জাপান আর রাশিয়ার মধ্যকার দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধটা যেন শেষ হয়েও হয়নি। মাঝখানে বাধা হয়ে আছে কুরিল দ্বীপপুঞ্জ—এই অংশটুকু কোন দেশের অন্তর্ভুক্ত হবে, সেই সংকটের সমাধান হয়নি সাত দশকেও।

জাপানের একেবারে উত্তরে হোক্কাইদো দ্বীপ ও রাশিয়ার কামশাত্কা উপদ্বীপের মাঝখানে অবস্থিত কুরিল দ্বীপপুঞ্জ। কুনাশির, ইতুরুপ, শিকোতান ও হাবোমাই নামের ছোট ছোট দ্বীপপুঞ্জ নিয়ে গঠিত এ এলাকা। এর মধ্যে কোনো কোনোটি জাপানের মূল ভূখন্ডের এক কিলোমিটারের মধ্যে অবস্থিত। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের শেষ পর্যায়ে জাপানের আত্মসমর্পণের এক মাসের মধ্যে ১৯৪৫ সালের সেপ্টেম্বরে জাপানের উত্তর প্রান্তের কুরিল দ্বীপপুঞ্জে হামলা চালায় তত্কালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন। তারা দ্বীপবাসীকে জাপানের মূল ভূখন্ড থেকে বিতাড়িত করে সেগুলো দখল করে নেয়।

১৯৫৯ সালে জাপানের সঙ্গে এক যৌথ ঘোষণায় সোভিয়েত ইউনিয়ন জানায়, শান্তিচুক্তি হলে তারা শিকোতান ও হাবোমাই দ্বীপ জাপানের হাতে ছেড়ে দেবে। কিন্তু চুক্তিটা হয়নি। ১৯৯০-এর পর রাশিয়া নিজের স্বার্থে সমস্যার সমাধানে উদ্যোগী হয়। জাপানি বিনিয়োগ আকৃষ্ট করার উদ্দেশ্য রাশিয়া ১৯৯৩ সালে যৌথ ঘোষণায় বলে, শান্তিচুক্তি হলে দ্বীপ দুটি তারা ছেড়ে দেবে। চুক্তিটা আজও হয়নি। পুতিন কয়েক দিন আগে জাপান সফরকালে অর্থনৈতিক চুক্তি করেছেন, কিন্তু সেই শান্তিচুক্তির ব্যাপারে কোনো অগ্রগতি হয়নি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: