চট্টগ্রামের দোহাজারীতে সংঘর্ষে পথচারীসহ আহত ৪

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৭ ডিসেম্বর: চট্টগ্রাম জেলার দোহাজারী এলাকায় চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে আবাহনী ক্লাবের জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে জামাই-শ্বশুরের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। এতে ১ পথচারী সহ ৪ জন আহত হয়। মহাসড়কে আধাঘন্টাকালব্যাপী যান চলাচল বন্ধ থাকে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা ৭ রাউন্ড গুলি করে। মধৎরgari
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, দোহাজারী এলাকার চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের পাশে সরকারি খালি জায়গা সরকার থেকে লীজ নিয়ে বহু বছর আগে আবাহনী ক্লাব নির্মাণ করে। এই ক্লাব নির্মাণ করার পর থেকে এ এলাকার স্বনামধন্য ক্লাব হিসেবে সকলের নিকট পরিচিতি লাভ করে। এই ক্লাব অত্র এলাকায় জাতীয় ও স্থানীয় পর্যায়ে অনেক ফুটবল খেলোয়াড় উপহার দেয়। তারা দোহাজারীর গৌরবোজ্জ্বল ভূমিকা রেখেছে।
আবাহনী ক্লাব কর্তৃপক্ষ দোহাজারীতে একটি অডিটরিয়াম নির্মাণের পরিকল্পনা করে, সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী ক্লাবকে সম্প্রসারণ করে যথারীতি অডিটরিয়াম নির্মাণের পরিকল্পনা করে, নির্মাণ কাজ শুরু করলে কিছু কুচিক্রী মহল দোহাজারী আবাহনী ক্লাবের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতে সংঘর্ষ জড়িয়ে পড়ে। গত ২৫ ডিসেম্বর দুপুরে নির্মাণকে কেন্দ্র করে উভয়ের মধ্যে ধাওয়া, পাল্টা ধাওয়া, ইট-পাটকেল নিক্ষেপের ঘটনা ঘটে। পরে রাত ৭টার দিকে পুনরায় একই ঘটনা নিয়ে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ সংঘর্ষের ঘটনায় আসকর বাবুর ভাই আকবর খান (৪৮), শিমুল খান (২৫), সাংবাদিক নাছিরের ছেলে রিয়াদ (২৫) ও একজন পথচারী আহত হয়। আহতদের প্রথমে দোহাজারী হাসপাতালে ভর্তি করা হলে আকবর খানের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠান।
সংঘর্ষ চলাকালীন চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের দোহাজারী এলাকায় আধ ঘন্টার অধিক সময় যান চলাচল বন্ধ হয়ে সড়কের উভয় পাশে শত শত যাত্রীবাহী বিভিন্ন যানবাহন আটকা পড়ে। এতে সাধারণ মানুষ এবং যাত্রীদের দুর্ভোগ পোহাতে হয়।
খবর পেয়ে চন্দনাইশ থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল কাসেম ভুইয়া ও ইন্সপেক্টর (তদন্ত) নজরুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ উপস্থিত হয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ব্যাপারে ইন্সপেক্টর (তদন্ত) নজরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেছেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি করে। পরবর্তীতে গাড়ী চলাচল স্বাভাবিক করে। এ ব্যাপারে উভয় পক্ষই থানায় অভিযোগ দিয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। তিনি আরো বলেন, মহাসড়কের পাশে একটি সরকারি জায়গা দখল-বেদখল নিয়ে শ্বশুর ও জামাই পক্ষের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।
চন্দনাইশ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আবুল কাশেম ভূইয়া ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে সাংবাদিকদের জানান।
এ ব্যাপারে সাবেক ফুটবলার বশির উদ্দিন মুরাদ জানান, একজন সাবেক জাতীয় ফুটবলার ও আরেকজন রহমতগঞ্জের জাতীয় ফুটবলার। তাদেরকে আহত করায় জাতি হতাশ, এহেন জঘন্য ঘটনা থেকে সকলকে বিরত থাকার আহবান জানান এবং দোষী ব্যক্তিদের খুজে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবী জানান।

Leave a Reply

%d bloggers like this: