দেশে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ বিস্তার লাভ করছে : সুরঞ্জিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, অভিজিৎ হত্যাকান্ডের দায় আল কায়েদা স্বীকার করে নেয়ায় প্রমাণিত হয়েছে এদেশে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ বিস্তার লাভ করছে। তিনি বলেন, অভিজিৎ হত্যাসহ ব্লগার হত্যাকান্ডেরSurajit দায়ভার নিয়েছে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ আল কায়দা। সকল সন্ত্রাসবাদের সঙ্গে এই সাম্প্রদায়িক রাজনীতি জোট বেধেছে। তাই অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক শক্তি নিয়েই একে দমন করতে হবে। সোমবার রাজধানীর ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট নিয়ে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি। বঙ্গবন্ধু একাডেমি এ আলোচনা সভার আয়োজন করে। জামায়াতকে গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে রেখে সন্ত্রাসবাদ দমনের প্রচেষ্টা পথভ্রষ্ট হবে বলে মন্তব্য করে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেন, বাংলাদেশও এখন আল কায়েদার নেটওয়ার্কে ঢুকে পড়েছে। এর মোকাবেলায় অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক রাজনীতিই একমাত্র পথ। তিনি বলেন, আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ এখন জাতীয় সন্ত্রাসবাদের মধ্যে ঢুকে গেছে- এ বিষয়টি যুক্তরাষ্ট্রকেও অনুধাবন করতে হবে। আওয়ামী লীগের প্রবীণ এই নেতা বলেন, অসার রাজনীতি আর বিধ্বস্তপ্রায় সংগঠন নিয়ে খালেদা জিয়ার রাজনীতি আজ পথভ্রষ্ট। জামায়াতের সঙ্গে সম্পর্ক রেখে গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে ফিরে আসা বিএনপির জন্য বাধা হয়ে দাঁড়াবে। সরকারকে আরো কঠোর ও কঠিন হবার পরামর্শ দিয়ে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত বলেন, রাজনীতিকে রক্ষার সময় এসেছে। দেশের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য আরো কঠোর, কঠিন হতে হবে। গণতান্ত্রিক, সাংবিধানিক ও নিয়মতান্ত্রিক ধারাকে অব্যাহত রাখার জন্য কঠোর ও কঠিন সিদ্ধান্ত নিতেই হবে। এ ব্যাপারে কোনো রকম আপস করার সুযোগ নাই। বেগম খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, আপনি দলীয় নেতাকর্মীদের নির্বাচনের মাঠ পাহারা দিতে বললেন- যেভাবেই পারো, মাঠে নামো। এটা বলে নিজেই হারিয়ে গেলেন। এভাবে যদি শেখ হাসিনা তার কর্মীদের বলতেন- তবে অনেকেই জীবন উৎসর্গ করে রাস্তায় নেমে পড়তো। কিন্তু আপনার ডাকে কেউ সাড়া দেয়নি। সংগঠনের উপদেষ্টা ডা. খন্দকার এনামুল হক সেলিমের সভাপতিত্বে সভায় আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য সতীশ চন্দ্র রায়, ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ফয়েজ উদ্দিন মিয়া, বঙ্গবন্ধু একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক হুমায়ুন কবির মিজি প্রমুখ বক্তব্য দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*