দেবতাকে খুশি করতে হলে দরকার দামি মদ আর সিগারেট

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ২৮ জানুয়ারি,২০১৭
জীবন যাতে সুখ-সমৃদ্ধিতে ভরে ওঠে সে কারণে মানুষ দেবতা-ঈশ্বরের পুজা-উপাসনা করেন। তার কাছে প্রার্থণা করেন। দেবতার তুষ্টির জন্য ভক্তরা তার পাতে মিষ্টি বা গলায় ফুল-মালা দেন। কিন্তু এখানে যে দেবতার কথা বলা হচ্ছে, তাকে তুষ্ট করার ব্যবস্থা অনেকটাই আরাদা। কোনো ফুল বা মিষ্টি নয়, এই দেবতাকে খুশি করতে হলে দরকার দামি মদ আর সিগারেট।

পেরুর ধন-সম্পদের দেবতা ‘একেকো’কে প্রসন্ন করতে দামি মদ আর সিগারেট চাই। শুধু প্রণামী নয়, এই ভগবানের কাছে মনের ইচ্ছে জানানোর ধরনও বেশ অন্যরকম। কোনো শরণার্থী যা চাইছেন, তার প্রতীক তুলে দিতে হয় পুরোহিতের হাতে।

বলিভিয়াতে প্রতি বছর ধূমধাম করে হয় ‘আয়মারা’ উত্সব। এই উৎসবেই একেকোর পুজায় ঢল নামে মানুষের। আলতিপানো বা হাইপ্লাতের পূরাণ মতে, একেকো হলেন ধন-সম্পদ ও ঐশ্বর্যের দেবতা। প্রতি বছর এই উৎসবে একেকোর মূর্তি বানিয়ে পুজো করা হয়।

মোটাসোটা চেহারা, চওড়া গোঁফ, পরনে ঢিলেঢালা আন্দিজ পোশাক। আর সঙ্গে থাকে প্রচুর ঘরোয়া সামগ্রী, অর্থ এবং খাদ্যদ্রব্য। একেকোর প্রসাদও দামি মদ আর ভালো তামাক। শুধু তাই নয়, ভক্তরা যা চান, তার একটি প্রতীক নিয়ে এসে পুরোহিতের হাতে তুলে দেন। ওই প্রতীক দেখে পুজো করে দেন পুরোহিত।

সাধারণত সদ্যবিবাহিত দম্পতিরা এবং যারা নতুন বাড়িতে কিনেছেন, তারাই একেকোর পুজো করে থাকেন। তবে একেকোর অন্যান্য ভক্তের সংখ্যাটাও কম নয়। সূত্র: এবেলা

Leave a Reply

%d bloggers like this: