দুর্ঘটনায় আহত অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১ মে ২০১৭, সোমবার: দুর্ঘটনায় আহত বাংলা সিরিয়ালের জনপ্রিয় অভিনেতা বিক্রম চট্টোপাধ্যায়ের আতঙ্ক না কাটা পর্যন্ত তাঁর সঙ্গে কথা বলতে নিষেধ করেছেন চিকিৎসকেরা। ওই দুর্ঘটনায় নিহত হন মডেল সনিকা সিংহ চৌহান। দুর্ঘটনায় অভিনেতা বিক্রম মেরুদণ্ড ও ঘাড়ে চোট পেয়েছেন। জিবে আঘাত থাকায় তাঁকে স্যুপ, ফলের রস দেওয়া হচ্ছে।
আনন্দবাজার পত্রিকার খবরে জানা যায়, বিক্রমের পরিবারের এক সদস্য আজ সোমবার জানিয়েছেন, চিকিৎসকের পরামর্শমতো সনিকার মৃত্যুর খবর বিক্রমকে জানানো হয়নি। বিক্রমের বাবা বিজয় চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘একবার চোখ খুলে জিজ্ঞাসা করেছে সনিকা কি এখানেই ভর্তি আছে, ওর অবস্থা কেমন?’
বিক্রমের সঙ্গে কথা না বললে দুর্ঘটনাসংক্রান্ত সব ধোঁয়াশা কাটবে না বলেই জানাচ্ছে লালবাজার থানার পুলিশ। গতকাল রোববার ফরেনসিক দল দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।
গত শনিবার ভোরে দ্রুতগতিতে চলা গাড়িটি লেক মার্কেটের সামনে দুর্ঘটনার মুখে পড়ে। মৃত্যু হয় মডেল সনিকা সিংহ চৌহানের। আহত হন বিক্রম। তিনি অবশ্য পুলিশকে জানান, গাড়ির গতি বেপরোয়া ছিল না।
দুর্ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ব্যক্তিদের একাংশ জানায়, গাড়ির দরজা খুলে সনিকা ও বিক্রমকে বাইরে আনা হয়েছিল। কিন্তু গাড়িটিতে পাঁচটি এয়ার ব্যাগ থাকা সত্ত্বেও কেন একটিও খোলেনি, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বিক্রমের পরিবার। তাদের আঙুল গাড়ি কোম্পানির দিকেই। যদিও বিশেষজ্ঞেরা জানাচ্ছেন, এয়ার ব্যাগ খোলার শর্ত রয়েছে। গাড়ি কীভাবে ধাক্কা লাগছে বা সিটবেল্ট বাঁধা আছে কি না, তার ওপরে নির্ভর করে এয়ার ব্যাগের কার্যকারিতা।
বিক্রমের বাবা বলেন, ‘ছেলে একটু সুস্থ হলে গাড়িসংশ্লিষ্ট সংস্থার বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ করব। এয়ার ব্যাগ কাজ করলে হয়তো একটা মেয়ের প্রাণ বেঁচে যেত। ছেলেও এতটা জখম হতো না।’

Leave a Reply

%d bloggers like this: