দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিলেন কেজরিওয়াল

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ভারতের রাজধানী দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন আম kazriwalআদমি পার্টির (এএপি) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল। আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি দুপুরে দিল্লির ঐতিহাসিক রামলীলা ময়দানে অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে শপথ বাক্য পাঠ করান দিল্লির উপ-রাজ্যপাল নাজিব জং। বেলা সোয়া ১২টায় শপথ নেন তিনি। গত বছরের এইদিনে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগের ঠিক এক বছর পর দ্বিতীয়বারের মতো দিল্লির শাসনভার গ্রহণ করলেন কেজরিওয়াল। শনিবার কেজরিওয়াল শপথ নেওয়ার পর তার মন্ত্রিসভার ছয় সদস্যও শপথ নেন। এর আগে শুক্রবার কেজরিওয়ালকে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ঘোষণা করেন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। এছাড়া কেজরিওয়ালের পরামর্শক্রমে রাষ্ট্রপতি ওইদিনই মনীশ সিসোদিয়া, জিতেন্দ্র সিং, সন্দীপ কুমার, সত্যেন্দ্র জৈন, অসীম আহমেদ খান ও গোপাল রাইকে মন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দেন। উল্লেখ্য, ২০১১ সালে এই রামলীলা ময়দানেই গান্ধীবাদী সমাজকর্মী আন্না হাজারের প্রধান সহকারী হিসেবে দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলনে নেমে সবার নজর কাড়েন ৪৬ বছর বয়সী কেজরিওয়াল। প্রথমবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর রামলীলা ময়দানেই শপথ নিয়েছিলেন কেজরিওয়াল। তবে সেবার আম আদমি সরকার দিল্লি শাসন করেছে মাত্র ৪৯ দিন। দুর্নীতি বিরোধী লোকবিল পাস না করায় ২০১৪ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ান পার্টি প্রধান কেজরিওয়াল। এরপর দিল্লিতে রাষ্ট্রপতি শাসন জারি করা হয়। সকাল সাড়ে ১১টার দিকে গাজিয়াবাদের বাসভবন থেকে বের হয়ে গাড়িতে চড়ে বেলা ১২টার দিকে রামলীলা ময়দানে পৌঁছান কেজরিওয়াল। সঙ্গে ছিলেন তার পরিবারের সদস্য ও দলেন নেতাকর্মীরা। শপথ গ্রহণের পর রাজঘাটে মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতিসৌধে যাওয়ার কথা কেজরিওয়ালের। এরপর দায়িত্ব গ্রহণ করতে যাবেন সচিবালয়ে। বিকেল সাড়ে ৪টায় মন্ত্রিসভার বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন তিনি। এএপির কয়েকজন নেতা জানান, শনিবার শপথ গ্রহণের পর রোববার থেকে মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে কেজরিওয়াল কাজ শুরু করতে নাও পারেন। তারা জানান, রোববার বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটি দেখার আগ্রহ প্রকাশ করেছেন পার্টির প্রধান। এ কারণেই শপথ অনুষ্ঠান রোববার না করে একদিন এগিয়ে দেয়া হয়েছে। দিল্লিতে বিজেপিকে ধরাশায়ী করে এবার রেকর্ড ভোটে জয়ী হয় আম আদমি পার্টি। তবে কেন্দ্রের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রেখে চলার বার্তা দিতে কেজরিওয়াল ইতিমধ্যেই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেছেন। এএপি সরকারের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, কেন্দ্রীয় নগর উন্নয়নমন্ত্রী ভেঙ্কাইয়া নাইডুকে আমন্ত্রণ জানানো হলেও ‘অন্য কাজ থাকায়’ তারা কেউই উপস্থিত ছিলেন না। এবারের দিল্লির বিধান সভার মোট ৭০টি আসনের মধ্যে ৬৭টিতে জয়ী হয় এএপি। আর বিজেপি মাত্র ৩টি আসনে জয় লাভ করেছে। কংগ্রেস পায়নি একটি আসনও। সূত্র : শীর্ষ নিউজ ডটকম

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*