তাজুলসহ জামায়াত নেতাদের অভিযোগ থেকে অব্যাহতি

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে জামায়াতে tazulইসলামীর তিন নেতা ও তাদের আইনজীবী তাজুল ইসলামকে অব্যাহতি দিয়েছেন আন্তর্জাতিক অপ রাধ ট্রাইব্যুনাল-১। সোমবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ আদেশ দেন। এদিকে ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি আবদুল জব্বার ও সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমানের বিরুদ্ধে কেন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করা হয়েছে। আগামী ৩ সপ্তাহের মধ্যে ব্যাখ্যা জমা দেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়। এ বিষয়ে ২৪ মে পরবর্তী শুনানি হবে। এ ব্যাপারে আইনজীবী শিশির মনির বলেন, আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত আমির মকবুল আহমাদ, ভারপ্রাপ্ত নায়েবে আমির মজিবর রহমান, ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারি ডা. শফিকুর রহমান এবং অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলামকে আদালত অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল। কিন্তু আদালত অবমাননার অভিযোগের জবাবে সন্তুষ্ট না হওয়ায় শিবিরের সভাপতি ও সেক্রেটারিকে তিন সপ্তাহের মধ্যে আবারো জবাব দিতে বলা হয়েছে। আদালতে আসামিপক্ষে অ্যাডভোকেট শিশির মনির, গাজী এম এইচ তানিম ও অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বল ও ব্যারিস্টার তুরিন আফরোজ। শিশির মনির সাংবাদিকদের বলেন, আদালত অ্যাডভোকেট তাজুলকে ক্ষমা করে দিয়েছেন এবং জামায়াতের ৩ নেতার আদালতে দাখিল করা ব্যাখ্যায় সন্তুষ্ট হয়ে তাদেরকেও অবমাননার অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছেন। তবে শিবিরের ২ নেতার ব্যাখ্যায় আদালত সন্তুষ্ঠ হননি। তাদের বিরুদ্ধে আবারও রুল জারি করেছেন। শিশির মনির জানান, শিবিরের সভাপতি আবদুল জব্বার ও সেক্রেটারি জেনারেল আতিকুর রহমানকে আইনজীবীর মাধ্যমে ৩ সপ্তাহের মধ্যে ব্যাখ্যা জমা দিতে হবে। আগামী ২৪ মে এ বিষয়ে পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে। এর আগে গত ৩ মার্চ জামায়াত নেতাদের পক্ষে অ্যাডভোকেট নজরুল ইসলাম ১১ পৃষ্ঠার লিখিত জবাব দাখিল করেন। এর আগে গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল এ টি এম আজহারুল ইসলামের রায় নিয়ে মন্তব্য করায় জামায়াতের ভারপ্রাপ্ত আমির ও তাজুল ইসলামসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ আনে প্রসিকিউশন। এ বছরের ১ জানুয়ারি এ বিষয়ে ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালত কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন। আদালতের নির্দেশ মতো নোটিশের জবাব দিলে আদালত সন্তোষ প্রকাশ করে চারজনকে অব্যাহতি দিলেও শিবির সভাপতি ও সেক্রেটারির বিরুদ্ধে রুল জারি করেন। তাঁদের আগামী ২৪ মের মধ্যে জবাব দিতে হবে। আজ আদালতে প্রসিকিউশনের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন অ্যাডভোকেট তাপস কান্তি বল। উল্লেখ্য, জামায়াত নেতা আজহারের মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়ার পর অ্যাডভোকেট তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ট্রাইব্যুনালে প্রসিকিউশন যে সাক্ষ্য-প্রমাণ দিয়েছে সেটা গ্রহণ না করে ডাস্টবিনে ছুড়ে ফেলা হলেই সুবিচার হতো- এটিএম আজহারুল ইসলামের বিরুদ্ধে উত্থাপিত সাক্ষ্য প্রমাণের ভিত্তিতে ফাঁসিতো দূরের কথা প্রসিকিউশনের জরিমানা করা হলে ভালো হত।

Leave a Reply

%d bloggers like this: