ঢাবি, ঢাকা জেলা প্রশাসক, জবি ও রাজধানীর তোপখানা রোডে ককটেল বিস্ফোরণ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : রাজধানীর তোপখানা রোডে পরপর দুটি koktalককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার দুপুর ২টা ২০মিনিটের সময় সচিবালয়ের পিছনে তোপখানা রোডে এ ঘটনা ঘটে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে কেউ হতাহত না হলেও আদালত পাড়ায় লোকজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সোমবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের রাস্তায় কে বা কারা ককটেল নিক্ষেপ করে। এতে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটলে স্থানীয় পথচারী ও কর্তব্যরত পুলিশ সদস্যদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দেয়। আর লোকজন ছোটাছুটি করতে থাকে। পরে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে সন্দহজনক লোকজনকে তল্লাশি করতে থাকে। এ ব্যাপারে কোতোয়ালী koktal-0থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান  জানান, আমি অন্য এলাকায় আছি। ঘটনাটি জানার চেষ্টা করছি। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) ক্যাম্পাসে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে সোমবার দুপুরে কে বা কারা ককটেল নিক্ষেপ করে। এতে বিকট শব্দে তা বিস্ফোরণ ঘটে। এসময় ক্যাম্পাসে উপস্থিত শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মচারীদের মাঝে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। পরে খবর পেয়ে কোতোয়ালী থানার ওসির নেতৃত্বে একদল পুলিশ এসে ক্যাম্পাসে তল্লাশি চালায়। এ ব্যাপারে কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাসান জানান, আমি জগন্নাথ ক্যাম্পাসেই আছি। ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনাটি পরে জানাচ্ছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) জগন্নাথ হলের সামনে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনানোর অভিযোগে দুই ছাত্রকে গণপিটুনি দিয়েছেন পথচারীরা। তারা হলেন, ঢাবি’র পরিসংখ্যান বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র শফিউল আলম শুভ (২৪) ও আরবি বিভাগের মাস্টার্সের ছাত্র হাসানুর রহমান (২৫)। সোমবার সকাল ৯টার দিকে এই ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। প্রত্যক্ষর্দীরা জানায়,  সোমবার সকাল সোয়া ৯টার দিকে দুই যুবক জগন্নাথ হলের সামনের রাস্তায় পর পর ২টি ককটের নিক্ষেপ করে। এতে বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটলে স্থানীয় পথচারীরা তাদের ধাওয়া করে। এসময় র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‌্যাব-১০) লালবাগ ক্যাম্পের ইমরান হোসেন নামে এক কনস্টেবল ও গাড়ি চালক পথচারীদের সাথে ধাওয়া করে ২ জনকে আটক করে। পরে পথচারীরা তাদেরকে গণপিটুনি দেয়। এতে তারা গুরুরত আহত হয়। পরে শাহবাগ থানা পুলিশ গিয়ে আটক দুই ছাত্রকে উদ্ধারের পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেয়। শাহবাগ থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক সোমা আক্তার জানান, ককটেল হামলা করে পালানোর সময় ২ জনকে পুলিশ আটক করেছে। তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। থানায় এখনো তাদেরকে আনা হয়নি। সূত্র : শীর্ষনিউজডটকম

Leave a Reply

%d bloggers like this: