মিথ্যা মামলায় জড়ানোর প্রতিবাদে জোহরা বেগমের সংবাদ সম্মেলন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৩ ফেব্র“য়ারী: ষড়যন্ত্র ও উদ্দেশ্যমূলক ভাবে একের পর এক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানী করার প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন করেছেন ভূক্তভোগী কক্সবাজারের Jahuraকলাতলীর মোছাম্মৎ জোহরা বেগম। আজ ২৩ ফেব্র“য়ারী মংগলবার দুপুর ১২ টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে জোহারা বেগম বলেন, আমার একই এলাকায় এখলাস বাহিনীগণ ফরিদ আলম, সামশুল আলম, বাদশা মাঝি, মনিয়া, ছৈয়দ উল্লা, জালালউদ্দিন, আর্মি ছৈয়দ, মতিন ডাক্তার, আবু তাহের, মো. ফরিদ, মজুল হক (ছৈয়দ আলম (২৫), জয়নাল আবেদীন (২৫) চট্টগ্রাম জেল হাজতে আছে), এরা আমার ছেলেরা এলাকায় ভালভাবে জীবন যাপন করুক এটা সহ্য করতে পারছে না এবং আমাদের সম্পদ কুক্ষিগত করারও গভীর ষড়যন্ত্র করছে তারা। ঐ এখলাছ বাহিনী অনবরত আমাদেরকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে এবং ইয়াবা টেবলেট দিয়ে মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে দেবে বলে হুমকী প্রদান করছে।
মোছাম্মৎ জোহরা বেগম সংবাদ সম্মেলনে জানান, ঐ সন্ত্রাসী বাহিনীর সদস্যরা আমার পরিবারের দীর্ঘ দিনের অর্জিত সুনাম ক্ষুন্ন করার হীন মানসিকতায় লিপ্ত হয়েই এমন পরিস্থিতির উদ্ভব করেছেন। আমি একজন সহজ-সরল নিরিহ শান্তিপ্রিয় মানুষ। তাই চলমান ঘটনা দৃষ্টে প্রশাসনসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার কাছে আমার এহেন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত কুচক্রি মহলকে চিহ্নিত করে তাদের উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিতপূর্বক আমার পরিবারকে হয়রানী থেকে অব্যাহতি দিয়ে সাধারণ মানুষের ন্যায় জীবন-যাপনের পথ সুগম করে দিবেন।
মোছাম্মৎ জোহরা বেগম বলেন, ঐ চক্র দীর্ঘদিন ধরে থানায় দালালিসহ বিভিন্ন অপকর্ম করে ঘুরে বেড়াচ্ছে, তারা এলাকার অনেক সাধারণ মানুষকে একের পর এক মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দিয়ে এলাকা ছাড়া করেছে। ঐ এখলাছ চক্র এমন কি সাগর পথে মানবপাচার কাজে জড়িত। তাদের হাতে পাচার হওয়া লোকজন মাঝপথে থাইল্যাণ্ড ও মায়ানমারের জেল হাজতে মানবেতর জীবন যাপন করছে। তাদের অত্যাচারে অনেকে নিঃস্ব হয়ে গেছে। এই এখলাছ বাহিনী ও তার গডফাদেররা মানুষকে ইয়াবা চালান মামলায় জড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে এলাকার সাধারণ মানুষের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। কেউ তাদের বিরুদ্ধে কথা বললে তাকে পুলিশে ধরিয়ে দিবেন হুমকী দেন। পুলিশও আর যাচাইবাছাই না করে ঐ চক্রের কথানুয়ায়ী সাধারণ মানুষকে মিথ্যা মামলায় চালান দিয়ে দিচ্ছে। যাচাইবাছাই না করার কারণে নিরীহ ও সাধারণ মানুষ বেশী হয়রাণীর শিকার হচ্ছে।
মোছাম্মৎ জোহরা বেগম জানান, এক সময়ের অভাবী এখলাছরা এখন কোটি কোটি টাকার মালিক। পুলিশের ভয় দেখিয়ে নিরক্ষর, সে এলাকার শিক্ষিত, চাকুরিজীবিসহ সুশিল সমাজের মানুষকে শাসিয়ে বেড়াচ্ছে। পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাদের নাম ভাঙ্গিয়ে নিরবেও চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে।
মোছাম্মৎ জোহরা বেগম জানান ইয়াবা ট্যাবলেট দিয়ে তার পরিবারের অন্য সদস্যদের মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে গ্রেপ্তার করার হুমকি দিচ্ছে। বর্তমানে এখলাছ বাহিনীর ভয়ে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তিনি চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। রাতে কেউ বাড়িতে থাকতে সাহস পাচ্ছে না। তিনি এখলাছসহ তার অর্থের যোগানদাতা গডফাদারদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন মো. ফজলুল হক, রোজিনা বেগম, শাহিন আকতার, লাকী আকতার, হাছিনা বেগম, সেনোয়ারা বেগম, আয়শা বেগম, মো. আবদু, মোহাম্মদ ইয়ছিন আরাফাত, মো. ইমন, মো. নাদের, এরশাদ উল্লাহ, জাফর মাছি, আবদুল হামিদ, আনোয়ারা বেগম, দিলদার বেগম প্রমুখ।

Leave a Reply

%d bloggers like this: