ট্রাম্পের সাক্ষাৎ মিলবে অর্থ দিলে!

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ মার্চ ২০১৯ ইংরেজী, মঙ্গলবার: বিভিন্ন বাণিজ্যিক সংস্থাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রচার পাইয়ে দেওয়ার কাজ করা এক চীনা সংস্থা তাদের সাইটে দাবি করেছে, ‘অর্থ’ দিলেই তারা প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সঙ্গে দেখা করার এবং কথা বলার সুযোগ করিয়ে দেবে। এমনকি, ফ্লোরিডার পাম বিচে প্রেসিডেন্টের ব্যক্তিগত রিসর্টে যাওয়ার ছাড়পত্র জোগাড় করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছে ওই ওয়েবসাইটে। এই ওয়েবসাইটটির মালিক মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় ট্রাম্পের প্রচার তহবিলে মোটা অঙ্কের অনুদান দিয়েছিলেন।
এমনিতেই প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরও ট্রাম্প কীভাবে ব্যক্তিগত রিসোর্ট ও ক্লাবের ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন এবং সেখানকার সদস্যদের সঙ্গে নানা ধরনের আলোচনায় মাতছেন তা নিয়ে নানা সময়েই প্রশ্ন উঠেছে। এমন অবস্থায় এ ধরনের খবর সামনে আসায় অস্বস্তি বেড়েছে হোয়াইট হাউসের। অর্থের বিনিময়ে এমন কাজের নৈতিক দিক নিয়েও প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন অনেকে। খবর জিনিউজের।
বিষয়টি প্রথমে প্রকাশ্যে আনে ‘মায়ামি হেরাল্ড’ নামে একটি সংবাদপত্র। ওই ওয়েবসাইটের প্রতিষ্ঠাতা লি ইয়াংয়ের সঙ্গে প্রেসিডেন্টের একটি ছবিও ছাপা হয়। সংবাদপত্রের দাবি, ছবিটি ওই ওয়েবসাইটেই রয়েছে। এছাড়াও আরও একগুচ্ছ ছবি রয়েছে ওই সাইটে। যার মধ্যে ট্রাম্পের ব্যক্তিগত রিসোর্ট মার-এ-লাগোর ভিতরেরও একাধিক ছবি রয়েছে। ইয়াংয়ের পরিচয় হিসেবে ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে, ‘প্রতিষ্ঠাতা সিইও’, ‘প্রেসিডেন্সিয়াল ফান্ডরেইজিং কমিটির সদস্য’ এবং ‘প্রেসিডেন্সিয়াল ক্লাবের সদস্য’। নামের সঙ্গে দুর্নামও আছে। এককালে একটি ‘স্পা’ এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন ইয়াং। যার মালিক রবার্ট ক্রাফটের বিরুদ্ধে মধুচক্র চালানোর অভিযোগ উঠেছিল।
স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টি সামনে আসার পর বিতর্ক তৈরি হয়েছে। প্রশ্নের মুখে পড়তে হয়েছে রিপাবলিকানদের। ফ্লোরিডায় দলের ভাইস চেয়ারম্যান ক্রিশ্চিয়ান জিগলার বিষয়টিকে লঘু করার চেষ্টা করে বলেন, ‘যে কেউ যেকোনো অনুষ্ঠানে এসে ছবি তুলতেই পারেন। এটাকে এত বড় করে দেখার কিছু নেই। ওই মহিলাকে দেখে আমি চিনতেও পারব না। দলে ওর কোনও ভূমিকাও নেই।’
তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো প্রতিক্রিয়া জানায় হোয়াইট হাউস। এছাড়া মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও এ নিয়ে কোনো প্রতিক্রিয়া জানান নি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: