টানা বর্ষণে ‘জলের তলে চট্টগ্রাম’

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : ৪ জুলাই, ২০১৭
ভারি বর্ষণের কারণে বন্দর নগরী চট্টগ্রামে ফের জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়েছে। এতে দুর্ভোগে পড়েছেন লাখো মানুষ। নগরী ও আশেপাশের কয়েকটি উপজেলায় গতকাল রাত থেকে শুরু হওয়া ভারি বর্ষণ চলে। এর আগে শনিবার রাতেও বৃষ্টি হয়।এতে নগরীর আগ্রাবাদ এক্সেস সড়ক, বড়পোল মোড়, সিডিএ আবাসিক এলাকা, পোর্ট কলোনির কয়েকটি সড়ক, চান্দগাঁও আবাসিক এলাকা, বহদ্দারহাট মোড়, বহদ্দার বাড়ি সড়ক, হালিশহর, পাঁচলাইশ আবাসিক এলাকায় জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।

এছাড়া নগরীর জিইসি মোড়, দুই নম্বর গেইট, প্রবর্তক মোড়, মেহেদীবাগ এলাকায় সড়কেও পানি জমে যায়।নগরীর জলাবদ্ধতা ও সড়কের বেহাল দশা নিয়ে সকালে নগর ভবনে সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিনের সংবাদ সম্মেলন শুরুর আগেই টানা বৃষ্টিতে নগরীর এসব এলাকার সড়কে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হয়।আজ সকাল ৬টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত নগরীর কেন্দ্রে আমবাগান আবহাওয়া অফিসে ১২৫ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

জলাবদ্ধতার কারণে নগরীর কয়েকটি সড়কে যানজট সৃষ্টি হয়েছে। আবার কোনো কোনো স্থানে যানবাহনের সঙ্কট দেখা গেছে। এতে চরম ভোগান্তিতে পড়েন অফিসগামী ও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ নগরবাসী।আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বার্তায় বলা হয়েছে, মৌসুমী বায়ুর অক্ষ রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে।মৌসুমী বায়ু বাংলাদেশের উপর সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় রয়েছে। পতেঙ্গা আবহাওয়া অফিসের ডিউটি অফিসার বিজন রায় গণমাধ্যমকে জানান, বর্ষা মৌসুমে এ ধরনের বৃষ্টি হয়।

এ বৃষ্টি আরও তিন-চারদিন চলতে পারে।আবহাওয়া পূর্বাভাস অনুসারে, চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ স্থানে অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারি থেকে অতি ভারি বর্ষণ হতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*