জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ চলছে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৮ ডিসেম্বর, বুধবার: প্রথমবারের মত হতে যাওয়া জেলা পরিষদ নির্বাচনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত চলবে এই ভোটগ্রহণ। জেলা ও উপজেলায় স্থাপিত ভোটকেন্দ্রে চেয়ারম্যান, সাধারণ সদস্য ও সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে ভোট দেবেন স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা।
নির্বাচনের প্রত্তুতি সম্পর্কে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ জানান, দেশে প্রথমবারের মতো হতে যাচ্ছে জেলা পরিষদ নির্বাচন। এরই মধ্যে এ নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এটা একটা অন্যরকম নির্বাচন। কারণ এখানে ভোট দেবেন জনপ্রতিনিধিরা। আর দেশে প্রথম হতে যাওয়া এই নির্বাচন যেকোনো মূল্যে অবাধ ও সুষ্ঠু করার জন্য নির্বাচন কমিশন বদ্ধ পরিকর।
নিরাপত্তা ২৩ হাজার র্ফোস
জেলা পরিষদের প্রতিটি ভোটকেন্দ্র পাহারায় থাকবে ২০জন করে সদস্য। পুলিশ, আর্মস পুলিশ ব্যাটালিয়ান, ব্যাটালিয়ান আনসার ও আনসার ভিডিপির সদস্যরা। এর মধ্যে ১জন অস্ত্রসহ, পুলিশ (কনস্টেবল) অস্ত্রসহ, আনসার ১জন অস্ত্রসহ, আনসার ১জন অস্ত্রসহ এবং অঙ্গিভূত আনসার ১৫জন লাঠিসহ। এরমধ্যে পুরুষ ৮জন ও মহিলা ৭জন।
কেন্দ্রের বাইরে স্ট্রাইকিং ফোর্স থাকবে বিজিবি ও র‌্যাব। প্রতিটি উপজেলায় বিজিবির ২টি মোবাইল টিম (প্লাটুন ২টি প্রতি প্লাটুনে সদস্য সংখ্যা ৩০জন) এবং ১টি স্ট্রার্কি ফোর্স (১ প্লাটুন)।
আর প্যাট্রোলিং ও স্ট্রাইকিংয়ের দায়িত্বে থাকবে র‌্যাব। এ হিসেবে প্রতিটি উপজেলায় র‌্যাবের ২টি মোবাইল টিম ও ১টি স্ট্রাইকিং ফোর্স (প্রতিটি টিমে ১০জন করে সদস্য)। এছাড়া ৯১৫জন ম্যাজিস্ট্রেট থাকবে প্রতিটি কেন্দ্রে। আর ৯১জন থাকবে বিচারিক ম্যাজিস্ট্রেট।
ইসি সূত্র জানায়, এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২২, সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৩৯জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৫৩ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
প্রতিদ্বন্দ্বী ৩৯৩৮জন
ইসির জনসংযোগ পরিচালক এস এম আসাদুজ্জামান জানান, জেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান, সাধারণ ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে মোট প্রার্থীর সংখ্যা ৩ হাজার ৯৩৮জন। তবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহের সময় এ সংখ্যা ছিল ৪২৭১জন। প্রত্যাহার এবং মনোনয়নপত্রে ক্রটির কারণে কমেছে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর সংখ্যা।
বিনা-প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতদের মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২১জন রয়েছে। চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী থাকছেন ৩৯ জেলায় ১২৪ জন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৬৪ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৬৮ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী এখন ২ হাজার ৯৮৬ জন এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৮০৬ জন। প্রথমবারের মতো অনলাইনে মনোনয়ন জমার সুযোগ থাকলেও কেউ এ সুযোগ নেয়নি।
ভোটার ৬৩১৪৩, কেন্দ্র ৯১৫
জেলা পরিষদের ৬১ জেলায় ৬৩ হাজার ১৪৩ জন ভোটার। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪৮ হাজার ৩৪৩ জন এবং নারী ভোটার ১৪ হাজার ৮০০ জন।
৬১ জেলা পরিষদ নির্বাচনে ৬৩ ১৪৩জন ভোটারের জন্য ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে ৯১৫টি। আর কক্ষ থাকছে ১ হাজার ৮৩০টি। প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় ওয়ার্ডভিত্তিক ভোটকেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।
ব্যালট মুদ্রণ ১৩৮১২৬
নির্বাচন কর্মকর্তারা জানান, বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীর এলাকা বাদ দিয়ে বাকি প্রার্থীদের জন্য চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১ লাখ ৩৮ হাজার ১২৬টি ব্যালট মুদ্রণ করেছে কমিশন।
এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদের জন্য ৩৯ হাজার ৮৭টি, সাধারণ কাউন্সিলর পদের জন্য ৫১ হাজার ৪৩৯টি এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদের জন্য ৪৭ হাজার ৬০০টি।
ব্যয় সোয়া ৫ কোটি টাকা
ইসির বাজেট শাখার জ্যেষ্ঠ সহকারী সচিব এনামুল হক জানান, জেলা পরিষদ নির্বাচনে পরিচালনা খাতেই সোয়া ৫ কোটি টাকার বেশি বাজেট ধরা হয়েছে। পরে আইন শৃঙ্খলাখাতের ব্যয় যুক্ত হবে।
নির্বাচন ঘিরে ১২ ডিসেম্বর থেকে ১৮ দিনের জন্য ৯১ জন নির্বাহী হাকিম নির্বাচনী এলাকাগুলোতে নিয়োজিত থাকবেন। এছাড়া ভোটের সময় চার দিন ৯১ জন বিচারিক হাকিম থাকবেন আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর মোবাইল-স্ট্রাইকিং ফোর্সে। তাদের দায়ত্ব পালনের সময় জ্বালানি, আপ্যায়নসহ আনুষঙ্গিক খরচ ধরে কোটি টাকার বাজেট ঠিক করা হয়েছে।
পর্যবেক্ষক
৬১টি জেলা পরিষদে নির্বাচনে আটটি সংস্থার ৩ হাজার ২২৫ জন পর্যবেক্ষককে অনুমোদন দিয়েছে ইসি। এর মধ্যে আসক ফাউন্ডেশনের আড়াই হাজার এবং জানিপপের তিন শতাধিক পর্যবেক্ষক থাকবেন।
তিন পার্বত্য জেলা বাদ দিয়ে বাকি ৬১ জেলায় এ ভোট হচ্ছে। প্রতিটি জেলায় একজন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং ১৫ জন সাধারণ ও পাঁচজন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ভোট হবে।
সংসদ, সিটি করপোরেশন, উপজেলা, পৌরসভা, ইউনিয়ন পরিষদে জনগণের প্রত্যক্ষ ভোটে নির্বাচন হলেও জেলা পরিষদ আইনে প্রত্যক্ষ ভোটের বিধান নেই। জেলার অন্তর্ভুক্ত সিটি করপোরেশনের (যদি থাকে) মেয়র ও কাউন্সিলর, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইউপির চেয়ারম্যান ও সদস্যদের ভোটে জেলা পরিষদের প্রতিনিধি নির্বাচিত হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*