জিকির ও আল্লাহর দরবারে মুসল্লিদের কান্নাকাটিতে জাম্বুরি মাঠের মাহফিল সমাপ্ত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : আল্লাহর জিকির, রাতব্যাপী ইবাদত ও দিনে ওয়াজ-নসিহতের মধ্য দিয়ে সমাপ্ত হয়েছে ঐতিহাসিক চরমোনাইয়ের বার্ষিক মাহফিলের নমুনায় চট্টগ্রামের আগ্রাবাদLast Day জাম্বুরি মাঠের তিন দিনব্যাপীর বার্ষিক ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকির। আজ সকাল বাদ ফজর হাজারো মুসল্লি ও জাকিরীনের আল্লাহর দরবারে কান্নাকাটিতে দোয়া ও আখেরি মুনাজাত অনুষ্ঠিত হয়। মুনাজাত পরিচালনা করেন চরমোনাইয়ের পীর সাহেব আমিরুল মুজাহিদীন হযরত মাওলানা মুফতী সৈয়দ মুহাম্মদ রেজাউল করীম। মুনাজাতপূর্ব বয়ানে পীর সাহেব চরমোনাই ধর্মপ্রাণ মুসলমান ও ভক্ত-মুরিদদের উদ্দেশ্যে মহানবী (সা.)-এর পূর্ণাঙ্গ অনুসরণে জীবন পরিচালনার তাগিদ দিয়ে বলেন, মহানবী (সা.) মৌলিক চারটি কর্মসূচি পরিচালনা করে গেছেন, দাওয়াত, তা’লীম, তাজকিয়া ও জিহাদ। প্রকৃত মুসলমান হতে হলে ঈমান এবং আমলে পাক্কা হতে হবে। আমলের পূর্বে যথাযথ জ্ঞান অর্জন করা ফরজ এবং সৎ কাজের আদেশ ও অসৎ-অন্যায়-অসত্যের বিরুদ্ধে হক কথা বলাও ফরজ। ধর্ম, নীতি-নৈতিকতাহীন ও হানাহানির রাজনীতি এবং দলাদলির ব্যাপারে ধর্মপ্রাণ মুসলমানকে সতর্ক করে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, পরকালে প্রত্যেকের হাশর হবে তার দলনেতার নেতৃত্বে। যারা আওয়ামী লীগ-বিএনপির রাজনীতি করে তাদের হাশর হবে হাসিনা-খালেদার নেতৃত্বে। তিনি ভক্ত-মুরিদদের উদ্দেশ্যে বলেন, হালাল রোজগার করবে, সন্তানদেরকে কুরআন-হাদীসের শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলবে। ঘরের স্ত্রী-মেয়েদের প্রতি ইনসাফ করবে, যারা নারীদের ওপর হাত ওঠায় তারা নিকৃষ্ঠ জালিম বলেও তিরিষ্কার করেন পীর সাহেব। কুরআন ও সুন্নাহর ভিত্তিতে ইসলামি আদর্শের যথাযথ বাস্তবায়নে মুসলিম উম্মাহর সার্বজনীন ঐক্যের আহ্বান জানিয়ে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, কারো ক্ষমতায় যাওয়ার সিঁড়ি এবং কাউকে ক্ষমতা থেকে নামানোর লাটিয়াল হিসেব ব্যবহৃত আমাদের কাজ নয়। পবিত্র কুরআন ও সুন্নতের আদর্শকে বাস্তবায়নের উদ্দেশ্যে ইসলামপন্থি ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ঐক্য হলে দেশ থেকে সকল অপশক্তি সম্পূর্ণ ধ্বংস হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ। পীর সাহেব ক্ষমতাসীনদের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, ক্ষমতার লোভ সরকারকে স্বৈরচারে পরিণত করেছে। দেশে জনমানুষের জান-মালের নিরাপত্তা বলতে নেই। দেশ পুড়ছে কিন্তু সরকার গায়ের জোরে ক্ষমতায় আকড়ে আছে। তিনি সতর্ক করে বলেন, দুনিয়া ক্ষণস্থায়ী, কেউ এখানে স্থায়ী নয়, পুরো জাহানের বাদশাহি করেও সেকান্দর বাদশাকে খালি হাতে কবরে যেতে হয়েছে। আওয়ামী লীগ কিভাবে চিরকাল ক্ষমতায় থাকবে? পীর সাহেব চরমোনাইয়ের ভক্ত-মুরীদানের আধ্যাত্মিক ও আর্ত-সামাজিক সংগঠন বাংলাদেশ মুজাহিদ কমিটি চট্টগ্রাম জেলার উদ্যোগে চট্টগ্রাম আগ্রাবাদস্থ জাম্বুরি ময়াদনে গত ২২ জানুয়ারি থেকে শুরু হওয়া চরমোনাইয়ের ঐতিহাসিক বার্ষিক মাহফিলের নমুনায় ৩দিনব্যাপী ইজতিমায়ী ওয়াজ মাহফিল ও হালকায়ে জিকিরের জন্য প্রতিবারের ন্যায় এবারও মা-বোনদের ওয়াজ শোনার জন্য ৮০ হাজার স্কয়ার ফুটের সুবিশাল প্যান্ডেলের ব্যবস্থা ছিল। মাহফিলে অংশগ্রহণকারীদের নিরাপত্তার জন্য নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় পাঁচ শতাধিক প্রশিক্ষিত স্বেচ্ছাসেবক কাজ করেছেন। পুরো মাহফিল সুদক্ষ প্রযুক্তিবিদদের তত্ত্ববধানে সিসিটিভি ক্যামেরার মাধ্যমে পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে এবং মাহফিলের সকল কার্যক্রম সরাসরি ইন্টারনেটে সম্প্রচার করা হয়েছে। এবারের মাহফিলে দু’জন অমুসলিম হযরত পীর সাহেব হুজুরের হাতে ইসলাম গ্রহণ করেছেন। মাহফিলের সফলতায় মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কাছে শুকরিয়া জ্ঞাপন করেছেন, মুজাহিদ কমিটির জেলা সদর অধ্যাপক মাওলানা রফিকুল আলম, সেক্রেটারি আলহাজ আলী আকবর, আলহাজ আবুল কাশেম মাতব্বর, আলহাজ জান্নাতুল ইসলাম ও আল-মুহাম্মদ ইকবাল প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ মাহফিলের কাজে সহযোগিতার জন্য দাতা, স্বেচ্ছাসেবক, সংগঠনের কর্মি, হুজুরের ভক্ত-মুরীদ বিশেষ করে প্রচারের কাজে সার্বিক সহযোগিতার জন্য মিডিয়া কর্তৃপক্ষ এবং সাংবাদিকদের প্রতি সকৃতজ্ঞ ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: