জলাবদ্ধতা নিরসনে মনজুরের নিজ অর্থে ক্রয়কৃত দুই কোটি টাকার সরঞ্জাম নাছিরকে উপহার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : সাবেক মেয়র এম মনজুর আলমেরnasir সহযোগিতা নিয়ে চট্টগ্রামকে মেগাসিটিতে পরিণত করার ঘোষণা দিয়েছেন নবনির্বাচিত মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন। রোববার সকালে মনজুর আলমের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি এ ঘোষণা দেন। সকাল ১১টা ২৫ মিনিটে মনজুর আলমের বাসভবনে যান আ জ ম নাছির। প্রথমে মনজুর আলমের সঙ্গে হাত মিলিয়ে তাকে বুকে টেনে নেন নাছির। আ জ ম নাছির মনজুর আলমকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। আ জ ম নাছির ও মনজুর আলম একে অপরের মুখে মিষ্টি তুলে দেন। আ জ ম নাছির বলেন, ‘আমি মেয়র নির্বাচিত হয়ে বুধবার শপথ গ্রহণ করেছি। কিন্তু আইনি জটিলতায় দায়িত্ব গ্রহণ করতে প্রায় দুই মাস অপেক্ষা করতে হবে।nasir-0 ঢাকার দুই মেয়র এর মধ্যেই দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন। আমি এর মধ্যে সিটি কর্পোরেশন ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছি। এছাড়া প্রত্যেকদিন বিভিন্ন ওয়ার্ডের লোকজনের সঙ্গে কথা বলছি। বিভিন্ন সমস্যা চিহ্নিত করছি। দায়িত্ব গ্রহণের পূর্বে বাইর থেকে সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন কাজ করব।’ তিনি বলেন, মনজুর ভাই গত পাঁচ বছর সিটি কর্পোরেশন চালিয়েছেন। তার অভিজ্ঞতা রয়েছে। চট্টগ্রামের উন্নয়নে মনজুর ভাই সহ সকলের সহযোগিতা প্রয়োজন। মেয়রের পক্ষে একা সবকিছু করা সম্ভব নয়। শুধু মনজুর ভাই না সাবেক সকল মেয়রের সহযোগিতা ও পরামর্শে চট্টগ্রামকে সুন্দর ও মেগাসিটিতে পরিণত করতে পারব।’ মনজুর আলমের মতো সিটি কর্পোরেশনকে দলীয়মুক্ত রাখবেন কিনা এমন প্রশ্নে আ জ ম নাছির বলেন, আমি আগেই বলেছি সকল দল মতের উর্ধ্বে উঠে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন পরিচালনা করব। দুর্নীতি বিন্দুমাত্র আমাকে স্পর্শ করতে পারবে না। সর্বোচ্চ সততার মাধ্যমে চট্টগ্রামের উন্নয়ন করব। নবনির্বাচিত মেয়র নাছির উদ্দিনকে স্বাগত জানিয়ে এম মনজুর আলম বলেন, ‘নির্বাচিত মেয়র প্রার্থী পরাজিত প্রার্থীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করবেন এটি এখন রীতিতে পরিণত হয়েছে। আমিও নির্বাচিত হয়ে সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলাম। এভাবে রাজনীতিকদের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে উঠলে দেশ ও জাতির জন্য তা সুখকর। নবনির্বাচিত মেয়রের প্রতি আপনার কি পরামর্শ সাংবাদিকদের এ রকম প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘আমি দীর্ঘ ২২ বছর ধরে সিটি কর্পোরেশনের সাথে জড়িত। সমাজসেবা আমার রক্তে রক্তে মিশে গেছে। সিটি কর্পোরেশন একটি পরিবার। এ পরিবারের সঙ্গে প্রায় ৬০ লাখ সদস্য জড়িত। চট্টগ্রামের উন্নয়নে নাছির সাহেব যদি আমার কোন সহযোগিতা চান তবে আমি তাকে শতভাগ সহযোগিতা করব।’ জলাবদ্ধতা নিরসনে নিজ অর্থে ক্রয়কৃত দুই কোটি টাকার সরঞ্জাম আ জ ম নাছিরকে উপহার হিসেবে দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে মনজুর আলম বলেন, আমি চেয়েছিলাম চট্টগ্রামের মানুষ সুখী থাকুক। এজন্য নিজ অর্থে প্রায় দুই কোটি টাকার সরঞ্জাম ক্রয় করেছিলাম। যদি চট্টগ্রামের উন্নয়নে আরো অর্থ প্রয়োজন হয় তবে আমার ব্যক্তিগত পক্ষ থেকে সিটি কর্পোরেশনকে দেওয়া হবে। ’ প্রায় ৪০ মিনিট আলাপকালে মনজুর আলম ও আ জ ম নাছিরকে খুব হাস্যোজ্জ্বল দেখা গেছে। একে অপরকে বিভিন্ন বেয়াই হিসেবে উল্লেখ করে ঠাট্টা করেন। আ জ ম নাছির বলেন গতবার আওয়ামী লীগকে সহযোগিতার হাত এমনভাবে বাড়িয়ে দিয়েছেন যে, সিটি কর্পোরেশনকে মহিউদ্দিন ভাই এর হাতে তুলে দিয়েছিলেন। এবারও ইনশাল্লাহ মনজুর ভাই আমাকে সহযোগিতা করবেন। এ সময় সংসদ সদস্য এম এ লতিফ, দিদারুল আলম, কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন মনজু, পেশাজীবী সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, শ্রমিকা নেতা সফর আলী উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: