মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতন করছে সেনাবাহিনী: এইচআরডব্লিউ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১৩ ডিসেম্বর, মঙ্গলবার: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে মুসলিম রোহিঙ্গাদের ওপর যে নির্যাতন-নিপীড়ন চলছে এর পেছনে দেশটির সেনাবাহিনীর সম্পৃক্ততা খুঁজে পেয়েছে মানবাধিকার সংস্থা হিউম্যান রাইটসওয়াচ (এইচআরডব্লিউ)। স্যাটেলাইট থেকে তোলা একটি রোহিঙ্গা গ্রামের ছবি বিশ্লেষণ করে সংস্থাটি জানিয়েছে, বার্মিজ সৈন্যরাই গ্রাম জ্বালিয়ে দিচ্ছে। খবর বিবিসি বাংলার। ছবিতে দেখা গেছে গ্রামটি যখন জ্বলছিল তখন আশপাশে সেনাবাহিনীর ট্রাক যাতায়াত করছিল।
এইচআরডব্লিউ বলছে, ছবিতে প্রমাণিত হয়েছে যে আগুন দেয়ার সময় সেনাবাহিনী সেখানে ছিল। এইচআরডব্লিউ এই নিয়ে তৃতীয়বারের মতো রোহিঙ্গাদের গ্রাম জ্বালিয়ে দেয়ার পেছনে সেনাবাহিনীর হাত থাকার প্রমাণ হাজির করলো। তবে মিয়ানমার সরকার সবসময় বলছে, সৈন্যরা নয় বরং রোহিঙ্গারা নিজেরাই নিজেদের ঘরে আগুন দিচ্ছে।
এইচআরডব্লিউ’র এশিয়া বিভাগের পরিচালক ব্রাড অ্যাডামস্ বলছেন, ‘এটা বিশ্বাস করা কঠিন যে সৈন্যদের চোখের সামনে ওয়া পিকের ৩০০ বাড়ি এক মাস ধরে জঙ্গিরা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিল, আর সৈন্যরা সেটা বসে বসে দেখলো।’
তিনি বলেন, ‘স্যাটেলাইটের এই ছবির পর বার্মিজ সরকারি কর্মকর্তারা ধরা পড়ে গেছেন, তাদের ক্রমাগত অস্বীকৃতি যে বিশ্বাসযোগ্যতা হারিয়েছে, সেটা এখন তাদের স্বীকার করা উচিত।’

এইচআরডব্লিউ’র সর্বশেষ এই বক্তব্যের ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইছে, মিয়ানমার সরকারের একজন মুখপাত্র জ ঠেই বলেছেন রাখাইন রাজ্যের ঘটনা নিয়ে তদন্ত চলছে, সুতরাং এখন তারা কোনো মন্তব্য করবেন না।
সরকারি একটি তদন্ত দল পাঁচদিন ধরে ক্ষতিগ্রস্ত রোহিঙ্গা গ্রামগুলো সফর করেছে। জানুয়ারির শেষ দিকে তারা তাদের তদন্ত রিপোর্ট দেবে বলে আশা করা হচ্ছে।
অক্টোবর থেকে রাখাইন রাজ্যে সেনা অভিযানের পর ২৭ হাজার রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। বাংলাদেশ সরকার মানবিক দিক বিবেচনা করে সীমিত আকারে রোহিঙ্গাদের প্রবেশের সুযোগ দিয়েছে। তবে অনেক রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে ঢুকতে দেয়নি বিজিবি ও কোস্ট গার্ড।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*