চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের লর্ডস টেইলার্স এন্ড ফেব্রিক্স এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আ.জ.ম নাছির উদ্দীন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র tailorsআলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, বর্ষা মৌসুমে নগরীতে জলাবদ্ধতা দেখা দেয়। জলাবদ্ধতা একটি সমাধানযোগ্য সমস্যা। নগরবাসী সচেতন হলে এই সমস্যার সমাধান করা সম্ভব। নগরীর জলাবদ্ধতা সহনীয় পর্যায়ে নিয়ে আসার লক্ষে খাল, ছড়া, নালা-নর্দমা থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন এবং গভীরতা বৃদ্ধির জন্য আমি উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ দিয়েছি। বর্ষা মৌসুম শুরুর পূর্বেই খাল-ছড়া ও নালা-নর্দমাগুলো পানি চলাচলের উপযোগী করার প্রচেষ্টা চলছে। ইতোমধ্যে চাক্তাই খালের খনন কাজ শুরু হয়েছে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে চশমা খালের খনন কাজ শুরু করা হবে। ৩১ মে রবিবার সকালে নগরীর ষোলশহরস্থ চিটাগাং শপিং কমপ্লেক্সের লর্ডস টেইলার্স এন্ড ফেব্রিক্স এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। শপিং কমপ্লেক্স ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি শহিদুল আলম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদের খতিব মাওলানা জালাল উদ্দিন আল কাদেরী, ৮নং শুলকবহর ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. মোরশেদ আলম ও মো. জালাল হোসেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু, এটিএন বাংলার চট্টগ্রাম বিভাগীয় প্রধান আলী আব্বাস, বসুন্ধরা গ্র“পের উপদেষ্টা লে.কর্ণেল (অব) খন্দকার আব্দুল ওয়াহেদ, দিলদার হায়াত খান, এস এম আয়ুব আলী চৌধুরী, মাহাবুবুল হক তালুকদার, গোলাম মোস্তফা সহ প্রমুখ। সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন আরো বলেন, বর্ষা মৌসুমে জোয়ারের পানি ও প্রবল বর্ষণজনিত পানি এবং পাহাড়ের পলিমিশ্রিত পানিতে খাল-নালা-ছড়া ও নর্দমা ভরাট হয়ে জলাবদ্ধতার সৃষ্টি করে। তিনি এ ধরনের সমস্যা থেকে পরিত্রাণের লক্ষে নগরবাসীর সহযোগিতা কামনা করে বলেন, নাগরিকদের একটি অংশের অসচেতনতার কারণে নালা-নর্দমা ও খাল ভরাট হয়ে যায়। তারা নিজেরাই খাল ও নালায় আবর্জনা বা অন্যকিছু ফেলে ভরাট করে এবং দুর্ভোগের স্বীকার হন। মেয়র বলেন, নাগরিকগণ মাটি, আবর্জনা বা অন্যকিছু নালা-নর্দমা-খালে বা ছড়ায় ফেলা থেকে বিরত থাকলে জলাবদ্ধতা অনেকাংশে কমে যাবে। মেয়র বলেন, সীমিত জনবল দ্বারা নগরীর সবগুলো খাল-ছড়া, নালা-নর্দমা থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন ও অপসারণ অনেকটাই দুরূহ। তারপরেও নিজস্ব প্রযুক্তি ব্যবহার করে সীমিত জনবল ও অর্থের সাহায্যে নগরীর খাল-ছড়া, নালা-নর্দমা থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন এবং অপসারণ কাজ অব্যাহত রাখা হয়েছে। তিনি আশা করেন সম্মানিত নাগরিক সমাজ সচেতন হলে জলাবদ্ধতা অনেকাংশে কমে আসবে। মেয়র বলেন, ক্রেতা সাধারণকে আকৃষ্ট করার জন্য ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টির মাধ্যমে ষোলশহর শপিং কমপ্লেক্স মার্কেটটিকে জমজমাট করে গড়ে তুলতে হবে। তিনি সব শ্রেণী-পেশার মানুষের চাহিদা এবং সুলভ মূল্যে পণ্য সামগ্রী ক্রেতা সাধারণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রাখার জন্য ব্যবসায়ীদের প্রতি আহবান জানান। মেয়র চট্টগ্রামকে ব্যবসাবান্ধব নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ব্যবসায়ীদের সহযোগিতা কামনা করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*