চিটাগংকে জিততে ১৬৯ রান দরকার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৯ জানুয়ারী ২০১৯ ইংরেজী, বুধবার: ডেভিড ওয়ার্নার-নিকোলাস পুরানের হাফ সেঞ্চুরি আর আফিফ হোসেনের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে দারুণ সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছে সিলেট সিক্সার্স। বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) বুধবার দিনের প্রথম ম্যাচে চিটাগং ভাইকিংসের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ১৬৮ রান সংগ্রহ করেছে তারা। সুতরাং, জিততে হলে চিটাগংকে করতে হবে ১৬৯ রান। দুই দলই আজ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচ খেলতে নেমেছে। এর আগে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের বিপক্ষে চার উইকেটে হেরেছিল সিলেট। আর রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে তিন উইকেটে জিতেছিল মুশফিকুর রহিমের চিটাগং ভাইকিংস।
মিরপুরে অনুষ্ঠিত ম্যাচে সিলেট সিক্সার্সের অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার ৪৭ বলে ৫৯ রান করেছেন। এই রান করার পথে তিনি ২টি চার মারেন ও ১টি ছক্কা হাঁকান। ৩২ বলে ৫২ রান করে অপরাজিত থাকেন নিকোলাস পুরান। তিনি তিনটি চার ও তিনটি ছয় মারেন। এছাড়া আফিফ হোসেন ২৮ বল খেলে ৪৫ রান করেন। তিনি পাঁচটি চার ও তিনটি ছক্কা হাঁকান। চিটাগং ভাইকিংসের পক্ষে রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক ৩টি, নাঈম হাসান ১টি ও খালেদ আহমেদ ১টি করে উইকেট শিকার করেন।
সিলেট ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই বিপাকে পড়ে। দলীয় শূন্য রানে ফিরে যান ওপেনার লিটন দাস। ইনিংসের প্রথম ওভারের দ্বিতীয় বলে ক্যামেরন দেলপোর্টের হাতে ক্যাচ হন তিনি। দ্বিতীয় ওভারে নাঈম হাসানের বলে উড়িয়ে মারতে গিয়ে মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের হাতে ধরা পড়েন নাসির হোসেন। তৃতীয় ওভারে সাব্বির রহমানকে বোল্ড করেন ফ্রাইলিঙ্ক।
দলীয় ৬ রানে তিন উইকেট হারিয়ে বিপাকে পড়ার পর ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ৭১ রানের জুটি গড়েন আফিফ হোসেন। ইনিংসের ১১তম ওভারে উইকেটরক্ষকের হাতে ক্যাচ হন আফিফ। এরপর ওয়ার্নারের সঙ্গে জুটি বাঁধেন নিকোলাস পুরান। তারা ৭০ রানের পার্টনারশিপ করেন। ১৯তম ওভারে ফ্রাইলিঙ্কের বলে মুশফিকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ওয়ার্নার। এরপর নিকোলাস পুরান ও অলক কাপালি ইনিংস শেষ করে মাঠ ছাড়েন।
সংক্ষিপ্ত স্কোর
সিলেট সিক্সার্স ইনিংস: ১৬৮/৫ (২০ ওভার)
(লিটন দাস ০, ডেভিড ওয়ার্নার ৫৯, নাসির হোসেন ৩, সাব্বির রহমান ০, আফিফ হোসেন ৪৫, নিকোলাস পুরান ৫২*, অলক কাপালি ২*; রব্বি ফ্রাইলিঙ্ক ৩/২৬, নাঈম হাসান ১/২০, সিকান্দার রাজা ০/২৮, আবু জায়েদ রাহি ০/৩৪, খালেদ আহমেদ ১/৩৩, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ০/২৫)।

Leave a Reply

%d bloggers like this: