চারটি প্রকল্পের কাজ শেষ হলে পানি সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে ৪৩ কোটি লিটার: ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩ ফেব্র“য়ারী: ২০২১ সাল থেকে নগরবাসীকে ২৪ ঘণ্টা নিরবিচ্ছিন্নভাবে পানি সরবরাহ করা সম্ভব হবে উল্লেখ করে চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেছেন, এ সময়ের মধ্যে ওয়াসার চলমান চারটি প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে ওয়াসার চলমান প্রকল্পগুলোর অগ্রগতির বিষয়ে জানাতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান তিনি।
সংবাদ সম্মেলনে ওয়াসার চলমান চারটি প্রকল্পের অগ্রগতির বিষয়ে তথ্য তুলে ধরা হয়। বর্তমানে চলমান এ চারটি প্রকল্প হলো, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প, চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইম্প্রুভমেন্ট অ্যান্ড স্যানিটেশন প্রকল্প, কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-২) এবং ভাণ্ডালজুড়ি পানি সরবারহ প্রকল্প। এ চারটি প্রকল্পের কাজ শেষ হলে ওয়াসার দৈনিক পানি সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে ৪৩ কোটি লিটার।ctg_wasa_press_meet
এর মধ্যে কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্পের কাজ প্রায় শেষের পথে। ২০০৬ সালে একনেকে অনুমোদন পাওয়া এ প্রকল্পের ৯৬ শতাংশ কাজ ইতিমধ্যে শেষ হয়েছে। এ প্রকল্পের তিনটি প্যাকেজের মধ্যে দুটিই ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। আরেকটির কাজ ১৪ শতাংশ বাকি আছে। এপ্রিল মাসের শুরুতেই এ প্রকল্পের টেস্টিং শুরু হবে। প্রায় দু’মাসের টেস্টিং শেষে আগামি জুন থেকে এ প্রকল্প থেকে পানি সংগ্রহ করা যাবে। এর মধ্য দিয়ে রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় অবস্থিত এ প্রকল্প থেকে পুরো নগরে পানি সরবরাহ করা যাবে। ১ হাজার ৮৪৮ কেটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ের এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে ওয়াসার পানি উৎপাদন ১৪ কোটি লিটার বৃদ্ধি পাবে।
ওয়াসার দ্বিতীয় প্রকল্প চিটাগাং ওয়াটার সাপ্লাই ইম্প্রুভমেন্ট অ্যান্ড স্যনিটেশন প্রকল্পের কাজ শেষ হবে ২০২১ সালের মধ্যে। ২০১১ সালে একনেকে অনুমোদন পাওয়া এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১ হাজার ৭৮কোটি ৪৬ লাখ টাকা। এ প্রকল্পের অধীনে ১০টি প্যাকেজ রয়েছে। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে নগরে দৈনিক ৯ কোটি লিটার পানি সরবরাহ বৃদ্ধি পাবে। পাশাপাশি প্রণিত মাস্টার প্লান অনুসারে ড্রেনেজ ও স্যানিটেশন প্রকল্প গ্রহণ করার পথ সুগম হবে।
এছাড়া ২০১৩ সালে অনুমোদন পাওয়া কর্ণফুলী পানি সরবরাহ প্রকল্প (ফেজ-২) প্রকল্পের কাজ শেষ হবে ২০২১ সালের মধ্যে। ছয়টি প্যাকেজের এ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৪৯১ কোটি ১৫ লাখ টাকা। এ প্রকল্প শেষ হলে ১৪ কোটি লিটার পানি উৎপাদন বৃ্দ্িধ পাবে। ওয়াসার চার নম্বর প্রকল্প হলো ভাণ্ডালজুরি পানি সরবরাহ প্রকল্প। এটি বোয়ালখালীতে অবস্থিত। সর্বশেষ অনুমোদিত এ প্রকল্পের কাজ শেষ হবে ২০২০ সালে। ১ হাজার ৩৬ কোটি ৩০ লাখ টাকা ব্যয়ের এ প্রকল্পের কাজ শেষ হলে দৈনিক ৬ কোটি লিটার পানি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে। এটির ফলে শহরের সব মানুষ পানি সুবিধা পাবে।
সংবাদ সম্মেলনে ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন প্রকৌশলী এ কে এম ফজলুল্লাহ বলেন, ‘২০২১ সালের মধ্যেই ওয়াসার চলমান চারটি প্রকল্পের কাজ শেষ হবে। এর ফলে দৈনিক পানি সরবরাহ ৪৩ কোটি লিটার বৃদ্ধি পাবে। তাই আশা করছি ২০২১ সাল থেকে নগরবাসী ২৪ ঘণ্টা পানি পাবে।’
‘পাশাপাশি এসব প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে ২০২২ সাল থেকে ভূগর্ভস্থ পানি নেওয়া বন্ধ করে পরিবেশের সুরক্ষা ফিরিয়ে আনতে গভীর নলকূপগুলো বন্ধ করে দেওয়া হবে।’-জানান ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে ওয়াসার উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রশাসন) গোলাম হোসেন, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক (প্রকৌশল) রতন কুমার সরকার, সচিব মো. সামসুদ্দোহা, বাণিজ্যিক ব্যবস্থাপক বিশ্বজিৎ জহুরুল হক ও জনসংযোগ কর্মকর্তা কাজী নুরজাহান শীলা উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*