চন্দনাইশে আ’লীগ-বিএনপিসহ ৬ জন মেয়র পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ

চন্দনাইশ সংবাদদাতা: আসন্ন চন্দনাইশ পৌরসভা নির্বাচনে গত ২৯ নভেম্বর পর্যন্ত আ’লীগ-বিএনপি, এলডিপি, ইসলামী ফ্রন্টসহ ৬ জন মেয়র পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। গত ২৬ নভেম্বর ২য় দিনে মেয়র পদে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি এলডিপির প্রতিষ্ঠাতা Pic from Mayor Candidateচেয়ারম্যান, প্রাক্তন মন্ত্রী আলহাজ্ব ড. কর্নেল (অব.) বীর বিক্রমের ভাতিজা, পর পর দু’বার নির্বাচিত মেয়র আলহাজ্ব মো. আয়ুব কুতুবী, ইসলামী ফ্রন্ট সমর্থিত ঢাকা মহানগর ইসলামী ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল হাকিম, ইসলামী ফ্রন্ট চট্টগ্রাম মহানগর (দক্ষিণ)’র সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আলমগীর ইসলাম বঈদী। গত ২৯ নভেম্বর আ’লীগের একক প্রার্থী দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম খোকা, বিএনপি প্রার্থী প্রাক্তন হারলা ইউপি চেয়ারম্যান, পৌর বিএনপির সভাপতি মো. নুরুল আনোয়ার, স্বতন্ত্রী প্রার্থী জেসিকা ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপের চেয়ারম্যান ও সৌদিয়ার হোটেল ব্যবসায়ী মো. জসিম উদ্দিন মেয়র পদে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন।
এলডিপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী বর্তমান মেয়র আলহাজ্ব মো. আয়ুব কুতুবী বলেছেন, দীর্ঘ ১০ বছর ধরে মেয়র পদে থেকে মানুষের সেবা করার চেষ্টা করেছি। এ সেবা অব্যাহত রাখতে আমি পুনরায় ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছি। জনপ্রতিনিধিরা মানুষের সেবা করার জন্য দায়িত্ব নিয়ে থাকে। সে আলোকে আমি দীর্ঘ ১০ বছরে পৌরসভার উন্নয়নে ব্যাপক কাজ করেছি। আগামীতেও সে ধারা অব্যাহত রাখতে সাধারণ ভোটারদের কাছে ভোট প্রার্থনা করছি। আ’লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম খোকা বলেছেন, সুন্দর একটি নির্বাচনের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে, জনগণকে সম্পৃক্ত করে আধুনিক পৌরসভা বাস্তবায়নে সরকারের সাথে নিবিড় যোগাযোগ স্থাপন করা। সরকারের আধুনিক প্রযুক্তি সম্বলিত তথা ডিজিটাল বাংলাদেশের অংশ হিসেবে চন্দনাইশ পৌরসভাকে ‘বি’ ক্যাটাগরি থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত করে জনগণকে আধুনিক প্রযুক্তিতে সেবা প্রদানের নিশ্চিত করা। সে সাথে পৌরসভাকে সকল প্রকার দুর্নীতিমুক্ত, সন্ত্রাসমুক্ত, চাঁদাবাজমুক্ত, স্বজনপ্রীতিমুক্ত সর্বোপরি জনগণের সেবাবান্ধব পৌরসভা হিসেবে প্রতিষ্ঠা করা। বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মো. নুরুল আনোয়ার কোন ধরনের বক্তব্য দিতে অস্বীকৃতি জানান। স্বতন্ত্র প্রার্থী জেসিকা ইন্টারন্যাশনাল গ্র“পের চেয়ারম্যান মো. জসিম উদ্দিন বলেছেন, নাগরিক উন্নয়ন কমিটির পক্ষ থেকে আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পৌরসভা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। আমি নির্বাচিত হলে পৌর এলাকাকে আধুনিক রূপে রূপান্তরিত করে জনগণের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করব। সে সাথে পৌরসভার অবকাঠামো উন্নয়নে সরকারি সাহায্য-সহযোগিতায় পৌরসভাকে মডেল পৌরসভা তথা ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত করার জন্য কাজ করে যাব। ইসলামী ফ্রন্ট সমর্থিত ঢাকা মহানগর ইসলামী ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক মো. আবদুল হাকিম বলেছেন, চন্দনাইশ পৌরসভায় যেভাবে উন্নয়ন করার কথা ছিল, সেভাবে হয়নি। সড়ক বাতি, রাস্তাঘাটের অবকাঠামোগত উন্নয়ন, অবাধে মাদক বিকিকিনি, ইভটিজিং এর মাধ্যমে চারিত্রিকভাবে নৈতিক অবক্ষয় ঘটছে, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অবকাঠামোগত উন্নয়ন, ড্রেনেজ ব্যবস্থা হয়নি। আমি নির্বাচিত হলে এ সকল বিষয় বাস্তবায়নের জন্য সরকারের নিকট প্রকল্প বাস্তবায়নে কাজ করে যাব। প্রযুক্তির এ যুগে চন্দনাইশ পৌরসভাকে ওয়াইফাই জোনে আনার চেষ্টা করব। উপজেলা আ’লীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর বলেছেন, আ’লীগের একক প্রার্থী মাহবুবুল আলম খোকা পৌর নির্বাচনে নির্বাচিত হলে আধুনিক পৌরসভা হিসেবে রূপান্তরিত করার জন্য স্থানীয় সাংসদের সহযোগিতায় সরকারি বরাদ্দ নিয়ে কাজ করে যাবেন। বর্তমান ডিজিটাল যুগে চন্দনাইশ পৌরসভাকে আধুনিক পৌরসভায় রূপান্তরিত করতে বর্তমান সরকারের ভিশন-২০২১ বাস্তবায়নে কাজ করার মধ্য দিয়ে ‘বি’ থেকে ‘এ’ ক্যাটাগরিতে উন্নীত করতে ভূমিকা রাখতে পারবে। অপরদিকে উপজেলা বিএনপির সভাপতি এড. নুরুল ইসলাম বলেছেন, পৌরসভা বিএনপির সিদ্ধান্তের আলোকে পৌর বিএনপির সভাপতি নুরুল আনোয়ার মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। কেন্দ্রীয়ভাবে সিদ্ধান্ত আসলেই নির্বাচনের ব্যাপারে আমরা কাজ করে যাব।

Leave a Reply

%d bloggers like this: