চট্টগ্রাম-৪ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপি নেতা মো. আসলাম চৌধুরীর পক্ষে সংবাদ সম্মেলন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ইংরেজী, শুক্রবার: ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চট্টগ্রাম সংসদীয় আসন-৪ এর মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী বিএনপি নেতা মো. আসলাম চৌধুরী আজ ২৮ ডিসেম্বর শুক্রবার সকাল ১১ টায় চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আসলাম চৌধুরীর বিশেষ আমমোক্তারনামা মূলে বিশেষ ক্ষমতাপ্রাপ্ত প্রতিনিধি মো. শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী জানান, মো. আসলাম চৌধুরী মনোনয়ন বাছাই পূর্বে রিটার্নিং অফিসার কর্তৃক অবৈধভাবে বাতিল ঘোষণা করেন। উক্ত সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আমরা নির্বাচন কমিশন বরাবর আপীল দায়ের করি গত ৫ ডিসেম্বর। আপীল আবেদন উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে এবং উপস্থিত মিডিয়ার সামনে মো. আসলাম চৌধুরীর প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করা হলে কোন এক অদৃশ্য ক্ষমতাবলে অথবা কলকাঠিতে রাতের আঁধারে রাত ৩ টায় সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হয়ে আমাদের আবেদন না মঞ্জুর হয়। তারপরও নিয়তি মেনে নিয়ে আমরা উচ্চ আদালতের শরণাপন্ন হয়ে ১৫৭৮৩/১৮ দায়ের করলে হাইকোর্ট গত ১৩ ডিসেম্বর আমাদের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করে প্রতীক বরাদ্দের নির্দেশ দেন। বাংলাদেশ জাতীয় নির্বাচন কমিশন আমাদের প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা না করে আপীল বিভাগে আপীল দায়ের করেন নং ৪৬৬২/১৮ কিন্তু উক্ত আপীল গত ১৮ ডিসেম্বর সুপ্রীম কোর্ট খারিজ করে দিয়ে আমাদের প্রার্থীতা বহাল রাখেন। কিন্তু অপর পক্ষে আমাদের প্রতিদ্বন্দ্বি দিদারুল আলমও একজন ঋণ খেলাপী হিসেবে তালিকায় ১ নম্বর। দিদারুল আলম ঋণ খেলাপী হওয়া সত্ত্বেও তার প্রার্থীতা বৈধ ঘোষণা করে নির্বাচনী বৈতরণী পাড় করে দেয়ার ষড়যন্ত্র করছে একটি মহল। কিন্তু বাংলাদেশের ব্যাংকের ক্রেডিট ইনফরমেশন ব্যুরোর রিপোর্ট অনুযায়ী নির্বাচন কমিশন কর্তৃক রিপোর্ট প্রদান করে যে, দিদারুল আলম একজন ঋণ খেলাপী। এরকম অনিয়ম, পক্ষপাতমূলক ও ষড়যন্ত্রমূলক আচরণের মাধ্যমে আমরা কি করে একটি ভাল সুষ্ঠু নির্বাচন পাব। এ সব তদন্তপূর্বক দিদারুল আলমের প্রার্থীতা স্থগিতপূর্বক যারা হেন ও গর্হিত কাজের সাথে জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছি। এ সময় কারাগারে থাকা আসলাম চৌধুরীর কর আইনজীবী সৌরভ হোসেনও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*