চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বৌদ্ধ পেশাজীবি পরিষদের শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১০ মে ২০১৭, বুধবার: বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী সম্প্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা। মহামতি গৌতম বুদ্ধের জন্ম, বোধি লাভ ও নির্বাণ লাভের স্মৃতি বিজড়িত দিনটি বৌদ্ধদের জন্য অত্যন্ত শুভদিন। এ  উপলক্ষে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বৌদ্ধ পেশাজীবি পরিষদ ১০ এপ্রিল ২০১৭খ্রি. শুভ বুদ্ধ পূর্ণিমা-২০১৭ উদযাপন উপলক্ষে চসিক প্রধান কার্যালয় চত্বরে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী সমাবেশ ও শান্তি শোভাযাত্রা আয়োজন করে। শোভাযাত্রা বেলুন ও ফেষ্টুন উড়িয়ে উদ্বোধন করেন চট্টগাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন। শান্তি শোভা যাত্রায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনে কর্মরত কর্মকর্তা কর্মচারী,শিক্ষক-শিক্ষিকা সহ তাদের পরিবারের সন্তানেরা অংশগ্রহণ করেন। শোভাযাত্রাটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় নগরভবনের বঙ্গবন্ধু চত্বরে সমাপ্ত করা হয়। শান্তি শোভাযাত্রা উদ্বোধন অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে পেশাজীবি পরিষদের সভাপতি ডা. প্রীতি বড়ুয়া,পরিষদের সাধারন সম্পাদক জয়সেন বড়–য়া, বৌদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অসীম বড়ুয়া, সাধারন সম্পাদক সুমেধ তাপষ বড়–য়া সহ অন্যরা বক্তব্য রাখেন। এছাড়াও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বৌদ্ধ পেশাজীবি কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ ৯ এপ্রিল ২০১৭ খ্রি. মঙ্গলবার, রাতে চসিক কে.বি.আবদুচ ছত্তার মিলনায়তনে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর সাথে শুভেচ্ছা  বিনিময় করেন। শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বৌদ্ধ পেশাজীবি পরিষদের সভাপতি ডা. প্রীতি বড়ুয়া। এতে ৩৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাবিবুল হক,চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আবুল হোসেন, চসিক বৌদ্ধ পেশাজীবি পরিষদের সাধারন সম্পাদক জয়সেন বড়–য়া, বৌদ্ধ পূর্ণিমা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অসীম বড়ুয়া, সাধারন সম্পাদক সুমেধ তাপষ বড়–য়া, ডা. খুকুমনি বড়ুয়া, সুপ্রিয়া বড়–য়া, দোলন বড়–য়া বক্তব্য রাখেন। চসিক বৌদ্ধ পেশাজীবি পরিষদের শুভেচ্ছা বিনিময় এবং শান্তি শোভাযাত্রা উদ্বোধন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেছেন, বিশ্ব শান্তির অনুসারী বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নিকট বুদ্ধ পূর্ণিমা সম্প্রীতি ও ভালবাসার স্মারক। বুদ্ধের সাম্য ও মৈত্রীর বাণী বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। তারমধ্যে হিংসা ও ভেদাভেদ ছিল না। অহিংসা ও সকল মানুষের প্রতি দয়ার আদর্শ মানব কল্যাণের মূল কথা। তিনি বলেন, কোন ধর্মই অকল্যান কামনা করে না। মানবতার কল্যানে সকল ধর্ম নিবেদিত। মানব জীবনের যাবতীয় সৎ ও মহৎ কর্মই পরকালে পরিত্রানের উপায়। দাম্ভিকতা ও শক্তি প্রয়োগ করে মানুষের কল্যান সাধন করা যায় না। মহামতি গৌতম বুদ্ধ মানব কল্যানে জীবন উৎসর্গ করে গেছেন। বর্তমান বিশ্বের সংঘাত, জঙ্গীবাদ মানবতার পরিপন্থি ও জীবন নাশকারী মতবাদ। এ মতবাদ থেকে সকল ধর্মের মানুষের পরিত্রানের জন্য প্রত্যেককে মানবতার পুজারী হতে হবে। মেয়র বুদ্ধের বাণীকে ধারন করে মানবতার কল্যানে এগিয়ে আসার জন্য বৌদ্ধ সম্প্রদায় সহ সকল ধর্মের লোকদের এগিয়ে আসার আহবান জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*