চট্টগ্রাম মহানগরী রিকশামালিক পরিষদের প্রতিবাদ সভা

চট্টগ্রাম মহানগরী রিকশামালিক পরিষদের উদ্যোগে গত ২ মে বিকাল ৪ টায় সংগঠনের কার্যালয়ে এক প্রতিবাদ সভা সংগঠনের সভাপতি মোহাম্মদ ছিদ্দিক মিয়ার Chittagong Mohanagar Riksha Malik Parishasসভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আসিফ মাহমুদ আকতার, কার্যকারী সভাপতি নুরুল ইসলাম, সিনিয়র সহ-সভাপতি মোহাম্মদ মুজিবুর রহমান, সহ-সভাপতি মোফাজ্জল হোসেন লেদু, মনির কোম্পানী, মোহাম্মদ আলী, মিজানুর রহমান মোস্তফা, খুরশিদ কোম্পানী প্রমুখ। বক্তারা বলেন, মহামান্য হাইকোর্ট থেকে ব্যাটারী চালিত রিকশা বন্ধের নির্দেশনা থাকার পরও কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল স্থানীয় প্রশাসনকে বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে ব্যাটারী চালিত রিকশা Token Riksha-4চালানোর পাঁয়তারা করছে, আমরা এই পাঁয়তারা বন্ধের জন্য প্রশাসনের নিকট বার বার ধর্না দিয়ে তা বন্ধ না হওয়াতে আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। কতিপয় স্বার্থান্বেষীমহল বিভিন্ন মিডিয়ায় বিভিন্ন সংগঠনের প্যাডে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মহামান্য সুপ্রীমকোর্টের রায়কে বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস চালাচ্ছে। আমরা এহেন ঘৃণ্য তৎপরাতারও প্রতিবাদ করছি। গত ১ মে চট্টগ্রামের দৈনিক আজাদী এবং ৩ মে দৈনিক পূর্বকোণ পত্রিকায় ব্যাটারী চালিত রিকশা রাস্তায় চলাচলের অনুমতি পেল সুপ্রীমকোর্টের একটি আদেশের ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে যে সংবাদ প্রচারিত হয়েছে সেই সংবাদেরও আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পাশাপাশি সঠিক তথ্যটি হচ্ছে গত ২০১৫ ইংরেজী ২৩ মার্চ তারিখে চট্টমেট্রোতে ব্যাটারী রিকশা প্রশাসন কর্তৃক বন্ধ করে দেয়। সেই আলোকে আগামী ১৮ জুন এই ব্যাপারে পূর্ণাঙ্গ শুনানী করার জন্য মহামান্য সুপ্রীমকোর্ট আদেশ দিয়েছেন এবং ঐ শুনানী না হওয়া পর্যন্ত ব্যাটারী রিকশা যে অবস্থায় আছে সেই অবস্থায় থাকার নির্দেশনাও রয়েছে। কিন্তু ব্যাটারী চালিত রিকশার কতিপয় নেতা তথ্য গোপন করে ২৩/০৩/২০১৫ ইংরেজীর স্থলে ২৩/০৪/২০১৫ ইংরেজী দেখিয়ে পত্রিকায় ও প্রশাসনের বিভিন্ন পর্যায়ে খবর প্রকাশ করে এই অপকর্ম চালাচ্ছে। এরিমধ্যে মহামান্য হাইকোর্ট থেকে সমস্ত মামলা মোকদ্দমা (১১০৬৫, ৬৯৩৫, ৪২৬৮, ৫২১৭) খারিজ করে দেয়। এই অপকর্মকার ও টোকেন ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে বিহীত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: