চট্টগ্রামে মাদকের বিস্তার ঘটছে দ্রুত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার: চট্টগ্রামে মাদকের বিস্তার ঘটছে দ্রুত। সাম্প্রতিক সময়ে মাদক চোরাকারবারিদের ধরতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর হলেও এদের সহায়তাকারী ও পৃষ্ঠপোষকেরা ধরাছোঁয়ার বাইরে। গত আট মাসে চট্টগ্রাম নগরের প্রধান মাদক আস্তানা ডবলমুরিং থানাধীন পাঠানটুলী গায়েবী মসজিদের পাশে জাফর সর্দ্দারের বাড়ীর মৃত এজাহার মিয়ার পুত্র রাজু ও মৃত আবদুল গণির পুত্র আলমগীর প্রকাশ ছোট আলমগীর। রাজু ও ছোট আলমগীর মামা ভাগিনা। এদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলে পুলিশ দিয়ে নিরীহ লোকদের হয়রানী করে। এদের নিয়ন্ত্রণাধীন এলাকা মগ পুকুর পাড় হতে মোগলটুলী ধাম্মো পুকুর পাড়, পাঠানটুলী ও আগ্রাবাদ তারা মাদক বিকিকিনি করে। তাদের সাথে কেউই ভয়ে কথা বলতে পারে না। চট্টগ্রাম নগর ও জেলায় মাদক ব্যবসায় যুক্ত ৯০ জনের একটি তালিকা করেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। আরেকটি তালিকা করা হয়েছে পৃষ্ঠপোষকদের। র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের অধিনায়ক বলেন, ‘মাদক বিক্রেতা, সেবনকারী ও পৃষ্ঠপোষকদের আজকের মধ্যে মাদক ব্যবসা ছাড়তে হবে। নইলে কাল তাদের জন্য বড় বিপদ অপেক্ষা করছে। তারা যত বড় প্রভাবশালীই হোক, আর কোনো ছাড় নয়।’
পুলিশ ও র‌্যাব কর্মকর্তারা জানান, চট্টগ্রাম নগরের প্রায় ৫০০ জায়গায় মাদক বেচাকেনা হয়। এর মধ্যে বরিশাল কলোনি, চট্টগ্রাম স্টেশন, কদমতলী বাস টার্মিনাল, মতিঝরনা, এনায়েতবাজার গোয়ালপাড়া, বায়েজিদ শের শাহ কলোনি, অক্সিজেন মোড়, ফিরোজ শাহ কলোনি, অলংকার মোড়, পাহাড়তলী, টাইগারপাস, বাটালি হিল মাদকের সবচেয়ে বড় বাজার।
পৃষ্ঠপোষকদের তালিকায় নগরের এক শীষ মাদক ব্যবসায়ীল নাম রয়েছেন। তিনি সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী। মুঠোফোনে কয়েক দফা যোগাযোগ করেও তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*