চট্টগ্রামে বিএনপির হরতাল পালিত

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : চট্টগ্রাম মহানগরীতে অবরোধের সাথে হরতাল কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী রিয়াজ রহমানের উপর হামলার প্রতিবাদে দেশব্যাপী ডাকা এই হরতালে চট্টগ্রাম মহানগরীতে মাঠে দেখা যায়নি কোন নেতাকর্মীকে। বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা থেকে হরতাল শুরু হলেও বিকের haraপর্যন্ত নগরীর কোথাও মিছিল সমাবেশ করতে পারেনি বিএনপি নেতা-কর্মীরা। এমনকি কাজীর দেউড়িস্থ নাসিমন ভবনে নগর বিএনপির দলীয় কার্যারয় ছিল তালাবদ্ধ। তবে বিএনপির একটি সূত্র জানায়, পুলিশী ঝামেলা এমনকী গ্রেফতার এড়াতে তার সক্রিয় হননি দলীয় এ কর্মসূচীতে। বৃহস্পতিবার ভোর থেকে হরতাল শুরুর পর বিকেল পর্যন্ত কোথাও নাশকতার কোন খবর পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার রাতে ঢাকার গুলশানে সাবেক প্রতিমন্ত্রী রিয়াজ রহমানকে গুলি চালিয়ে তার গাড়ি পুড়িয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার সারাদেশে হরতাল ডাকে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট। এদিকে হরতালে রাজপথে না থাকার কথা উড়িয়ে দিয়ে বিএনপি নেতারা বলছেন, নাসিমন ভবন কেন্দ্রিক রাজনীতি কমিয়ে আনতেই হরতালে সেখানে নেতা-কর্মীরা যাননি। দলীয় কার্যালয় ঘিরে রাজনীতি কমিয়ে থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে চান তারা। নগরীর অক্সিজেনসহ কয়েকটি পয়েন্টে মিছিল করেছেন বলে দাবি করেছেন বিএনপি ও ছাত্রদল নেতারা। এদিকে বৃহস্পতিবার হরতাল চলাকালে নাসিমন ভবন এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, সেখানে নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা পুলিশ সদস্যরা অলস সময় পার করছেন। নাসিমন ভবনের প্রবেশপথ বন্ধ রয়েছে। ভবনের মূল গেইটে তালা ঝুলছে। নুর আহমদ সড়কেও ২০ দলীয় জোটের নেতা-কর্মী কোন ধরনের কর্মসূচি পালন করেনি। মিছিল সমাবেশ করেছেন দাবি করে নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. hara-1শাহাদাত হোসেন বলেন, বৃহস্পতিবার সকালে অক্সিজেন এলাকায় আমারা মিছিল সমাবেশ করেছি। তিনি বলেন, আমরা চাই নাসিমন ভবন কেন্দ্রিক রাজনীতি কমে আসুক। রাজনীতি দলীয় কার্যালয় সিমাবদ্ধ থাকা উচিত নয় মন্তব্য করে তিনি বলেন, রাজনীতিকে থানা ও ওয়ার্ড পর্যায়ে ছড়িয়ে দিতে হবে। নাসিমন ভবনে দলীয় কার্যালয়ে লোকজন না থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, হরতালে দলীয় কার্যালয়ে বসে থাকার কোন কারণ নেই। হরতাল সফলে নগরীর বিভিন্ন স্পটে নেতা-কর্মীরা মিছিল সমাবেশ করছেন। অক্সিজেন এলাকায় অনুষ্ঠিত মিছিল-সমাবেশে নগর ছাত্রদলের সভাপতি গাজি সিরাজ উল্লাহ উপস্থিত ছিলেন জানিয়ে বলেন, নগরীর বিভিন্ন স্থানে মিছিল সমাবেশ করছি আমরা। তবে একটু কৌশলে করতে হচ্ছে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ৫ জানুয়ারি পুলিশের সঙ্গে বিএনপি-জামায়াতের সংঘর্ষের ঘটনায় গ্রেফতার নেতা-কর্মীদের জামিন নিয়েই ব্যস্ত রয়েছেন নেতারা। ফলে হরতালে মাঠে থাকার বিষয়ে তারা এই মুহূর্তে চিন্তা করছেন না। এছাড়া পুলিশের গ্রেফতার এড়াতে মাঠে নেই ছাত্রদল নেতারা। ফলে ঝুঁকি নিয়ে মাঠে নামছেন না কর্মীরা। এদিকে হরতালে নাশকতা মোকাবেলায় চট্টগ্রাম নগরীতে ব্যাপক নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। সহিংসতা মোকাবেলায় অতিরিক্ত পুলিশের পাশাপাশি বিজিবিও মোতায়েন থাকতে দেখা গেছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: