চট্টগ্রামে নেজাম উদ্দিন নামে এক যুবককে হত্যা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩১ অক্টোবর, সোমবার: চট্টগ্রাম নগরীর কোতয়ালি থানার রিয়াজউদ্দিন বাজার তামাকমুন্ডি লেইনে নেজাম উদ্দিন (২২) নামে এক যুবককে জবাই করে হত্যা1 করা হয়েছে। হত্যার পর মরদেহ জনতা মার্কেট নামে একটি ভবনের তিনতলায় ফেলে পালিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে কোতয়ালি থানা পুলিশের একটি টিম রোববার রাত ২টার দিকে ঘটনাস্থলে যায়। পরে তার মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।
নগর পুলিশের কোতয়ালি জোনের সহকারি কমিশনার (এসি) আব্দুর রহীম বলেন, নাজিম মার্কেটের বিভিন্ন দোকানে কাজ করত বলে জানতে পেরেছি। তবে সম্প্রতি সে বেকার হয়ে পড়েছিল। তাকে কারা হত্যা করেছে এখনও জানতে পারিনি। নেজাম উদ্দিনকে গলায় ছুরিকাঘাতের মাধ্যমে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান এসি রহীম। জনতা মার্কেটের তিনতলার একটি কক্ষে নেজাম উদ্দিন ব্যাচেলর হিসেবে ভাড়া থাকত বলে জানিয়েছেন এসি রহীম।
কোতোয়ালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন জানান, স্থানীয় ব্যবসায়িদের দেয়া খবরের ভিত্তিতে রাত দেড়টায় পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়েছে। কে বা কারা কি কারণে এ যুবককে হত্যা করেছে তা এখনো জানা যায়নি। আমরা এ ব্যাপারে তদন্ত করে দেখছি। কাউকে আটক করা যায়নি।
রেয়াজুদ্দিন বাজারে তামাকুণ্ডি লেইনের একজন ব্যবসায়ি জানান, নিহত নেজামের বাড়ি চট্টগ্রাম জেলার সাতকানিয়া উপজেলার মির্জাখিল গ্রামে বাংলা বাজার হাতিয়ারপুল এলাকায়। তার বাবার নাম মো. ইউনুছ। নেজাম উদ্দিন তামাকুণ্ডি লেইনের জনতা মার্কেটের ৫ তলায় একটি ব্যাচেলর বাসায় অন্য একজনের সাথে থাকতো। সে শ্রমিক দলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিল বলে দাবী করেন রেযাজুদ্দিন বাজার তামাকুন্ডি লেইন শ্রমিক দলের সেক্রেটারী মো. সেলিম। রাজনৈতিক কারণে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবী করেন তিনি। জানাগেছে, যে জনতা মার্কেটের উপরে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে তার মালিক সীতাকুণ্ড আওয়ামী লীগ নেতা ও সোনাইছড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোতাহের হোসেন সিদ্দিকি।
নিহত নেজাম উদ্দিনের বড় ভাই আওয়াল জানান, তাকে খুঁজতে গিয়ে গতকাল রাত ১টার দিকে বাসার বাইরে তালা লাগনো দেখতে পাই। পরে জানালা দিয়ে দেখা যায় তার রক্তাক্ত লাশ পড়ে আছে। আমার ভাইকে কারা মেরেছে তা বলতে পারছি না। স্থানীয়রা জানান, নিহত নেজাম উদ্দিন আগে রহমান ম্যানশন নামে একটি প্রতিষ্ঠানে চাকুরি করলেও পরে সেখান থেকে চাকুরি চলে গিয়ে বেকার হয়ে পড়ে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: