চট্টগ্রামে ট্রেন শিডিউল বিপর্যয়ে যাত্রীদের দূর্ভোগ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের লাগাতার অবরোধে ট্রেনের শিডিউলে দেখা দিয়েছে চরম বিপর্যয়। যার ফলে যেমন বিপাকে পড়েছে রেলওয়ে কর্মকর্তারা অন্যদিকে যাত্রীদের সীমাহীন দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। অবরোধে একদিকে ট্রেনে নাশকতা, অন্যদিকে যাত্রা বাতিল। এসব প্রতিকূলতা মাড়িয়ে যেসব ট্রেন চলছে সেগুলোও আবার নির্ধারিত সময়ের কয়েকঘণ্টা পর স্টেশন ছাড়ায় যাত্রী সাধারণ  তাদের গন্তব্যে পৌঁছতে সীমাহীন দূর্ভোগ পোহাছে ।1111 নির্দলীয় সরকারের অধীনে আগাম নির্বাচনের দাবিতে ৫ জানুয়ারি ‘গণতন্ত্র হত্যা দিবসের’ কর্মসূচিতে বাধা পাওয়ার পর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দেশজুড়ে টানা অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করেন। শনিবার অবরোধের ৬ষ্ঠ দিন অতিবাহিত হয়েছে। এর আগে ২০১৩ সালের প্রথমার্ধে বিএনপি-জামায়াত নেতৃত্বাধীন জোটের হরতাল-অবরোধে দেশের বিভিন্ন স্থানে রেললাইন ধরে নাশকতার চেষ্টা করে। শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত চট্টগ্রাম রেলস্টেশনে দেখা যায়, বেশিরভাগ ট্রেনই নির্ধারিত সময়ের কয়েক ঘণ্টা পর স্টেশনে এসেছে এবং চট্টগ্রাম থেকে  থেকে ছেড়েছে। স্টেশন কর্মকর্তারা জানালেন, শনিবার বিকেলে মহানগর গোধূলি ঢাকা থেকে ছেড়ে আসার কথা থাকলেও কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে রেললাইন উপড়ে ফেলার কারণে তার যাত্রা বাতিল করেছে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ। একইসঙ্গে চট্টগ্রাম থেকে ঢাকাগামী মহানগর প্রভাতীরও যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। স্টেশন ঘুরে আরও দেখা যায়, হাজারো যাত্রী ট্রেনের জন্য অপেক্ষমাণ। বিশেষ করে নারী ও শিশুদের অবর্ণনীয় দুর্ভোগ পোহাতে দেখা গেছে। 222শনিবার ভোর পৌনে ৫টার দিকে নাঙ্গলকোট রেলস্টেশনের পাশে তিন ফুটের মত আউটার রেললাইন কেটে ফেলে দুর্বৃত্তরা। এতে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও চট্টগ্রাম-সিলেট রেল যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়। চট্টগ্রাম রেলস্টেশনের ম্যানেজার আবুল কালাম আজাদ বলেন, রেললাইন কেটে ফেলায় ঢাকা থেকে গোধূলীর ইঞ্জিন ও বগি লাইনচ্যুত হয়ে চট্টগ্রামে আসতে পারেনি। গোধূলী এক্সপ্রেস মহানগর প্রভাতী হয়ে ঢাকায় যাবার কথা ছিল। ফলে প্রভাতীর যাত্রা বাতিল করা হয়েছে। প্রভাতী এক্সপ্রেস সকাল ৭টায় ছেড়ে যাবার কথা ছিল। আর চট্টলা এক্সপ্রেস ছেড়ে যাবার কথা ছিল সকাল ৮টা ৪০ মিনিটে। স্টেশন ম্যানেজার আরো জানান, রেললাইন সচল হওয়ার পর সকাল ১০টার দিকে চট্টলা এক্সপ্রেস চট্টগ্রাম ছেড়ে গেছে। এদিকে প্রভাতীর যাত্রা বাতিল হওয়ায় রেলস্টেশনে শত, শত যাত্রী চরম দুর্ভোগের মধ্যে পড়েন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করে ট্রেনের দেখা না পেয়ে তারা হতাশ হয়ে পড়েন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: