চট্টগ্রামে কবি সম্মিলন

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ১২ মে: চট্টগ্রামে বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে এপার বাংলা-ওপার বাংলা কবি সাহিত্যিকদের অংশগ্রহণে কবি সম্মিলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বারুইপুর মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ডিপুটি মেয়র কবি হাফিজুর রহমান বলেছেন, পৃথিবীর যেকোন দেশে গণতন্ত্র ও মানবতা যেখানে বিপন্ন, সেখানে কবিরাই কলমযুদ্ধে এগিয়ে এসে গণতন্ত্র ও মানবতাকে রক্ষা করেছেন। কবিরা স্বার্থহীনভাবে দেশ ও মানবতার কল্যাণের জন্য কাজ করে চলেছেনNews-12.05.2016 যুগে যুগে। তিনি আরো বলেন, আগামী দুই হাজার একুশ সালের মধ্যে বাঙ্গালী জাতি পৃথিবীতে নতুন করে শ্রেষ্ঠত্বের পরিচয় তুলে ধরবে। এগিয়ে যাবে নিজস্ব স্বকীয়তায়। কবিদের লিখনীতে বিশ্বজয় করবে। ইতিহাসের স্বাক্ষী হয়ে থাকবে কবি সাহিত্যিকদের এই নতুন ইতিহাস। কাব্যিক চর্চার মাধ্যমে এগিয়ে নিয়েছেন মহান মুক্তিযুদ্ধ ও ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলন, সুশৃঙ্খল করেছেন আপামর জনসাধারণকে। বৃটিশ বিরোধী আন্দেলন সহ সমগ্র পৃথিবীতে যেখানে গণতন্ত্র বিপন্ন সেখানে কবিদের কবিতার বিপ্লবের মাধ্যমে জয় করেছে মরণপণ অস্ত্রকে। অস্ত্র দিয়ে যেটা সম্ভব হয়নি সেটি কবির কবিতায় সম্ভব হয়েছে। এ বাংলায় জাতীয় সংগীত ঠাই করে নিয়েছেন কবিগুরু রবীন্দ্রনাথের লিখনী। বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কালজয়ী কাব্যচর্চা ও সাহিত্য পত্রগুলো এখনো বাঙালি সমাজকে নন্দিত করে রেখেছে। রবীন্দ্রনাথের লেখনীর মাধ্যমে বাঙালি জাতি আজও নতুন নতুন স্বপ্ন দেখে। কবি সম্মিলনে তিনি আরো বলেন, কবিতা আছে, কবিতা থাকবে, ইতিহাসের পাতায় স্থান করবে কবিদের পদচারণা।
বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ১৫৫তম জন্ম জয়ন্তী উপলক্ষে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের আয়োজিত এপার বাংলা ওপার বাংলা কবিদের অংশগ্রহনে কবি সম্মিলন-২০১৬ গত ১১ মে চট্টগ্রাম নগরীর মেরিট বাংলাদেশ স্কুল এন্ড কলেজের ভাষা সৈনিক মাওলানা হাসান শরীফ মিলনায়তনে কবি সম্মিলনে সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের উপদেষ্টা ও মেরিট বাংলাদেশ স্কুল এন্ড কলেজের চেয়ারম্যান লায়ন অধ্যক্ষ ড. মুহাম্মদ সানা উল্লাহ। কবি ও সাংবাদিক একেএম আবু ইউসুফ এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সম্মিলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রখ্যাত কবি সাহিত্যিক ও গবেষক ভারতের বাংলা চলচ্চিত্রের অতি পরিচিত নায়ক, বারুইপুর মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের ডেপুটি মেয়র ও কবি ও সাহিত্যিক অ্যাডভোকেট হাফিজুর রহমান। সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পশ্চিমবঙ্গ ভারতের বিশিষ্ট কবি ও সাহিত্যিক, আলোর দিশা পত্রিকার সম্পাদক অ্যাডভোকেট কবি আব্দুর রাজ্জাক খান, ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ হিউম্যান রাইটস-নিউ দিল্লীর মেম্বার ও মওলানা আবুল কালাম আজাদ মেমোরিয়াল শিক্ষা কেন্দ্রের অধ্যক্ষ, কবি ও গবেষক আনোয়ার হুসেন। উদ্ভোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক পূর্বদেশের সাহিত্য সম্পাদক কবি অধ্যাপক কমরু উদ্দিন আহম্মদ। প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কবিতা মঞ্চের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি মাহমুদুল হাসান নিজামী। কবি সম্মিলনের আয়োজক ও চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি কবি ও ইতিহাস গবেষক সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন স্বাগত বক্তব্য রাখেন। কবি সম্মিলনে বক্তব্য রাখেন আনসার ভিডিপি বাংলাদেশ চট্টগ্রামের ডিডি এম আজিম উদ্দিন চৌধুরী, কবি এবিএম ফয়েজ উল্লাহ, প্রাবন্ধিক নুর মোহাম্মদ রানা, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা আবদুর রহিম, রুমি গবেষক এসএম সিরাজুদ্দৌলা, চট্টগ্রাম চেম্বার অব কমার্স এর ডেপুটি সেক্রেটারী নুরুল আবছার চৌধুরী, কবি আরিফা খানম সিদ্দিকা, কবি আরিফ চৌধুরী, কবি আসিফ ইকবাল, কবি শিহাব ইকবাল, মুক্তিযোদ্ধা অমর দত্ত, মরমী গবেষক লায়ন ডাঃ বরুণ কুমার আচার্য বলাই, জেলা স্কাউটস এর সাধারণ সম্পাদক এসএম শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, চৌধুরী মোহাম্মদ শফি, কামাল পারভেজ, প্রাবন্ধিক এসএম ওসমান, মোহাম্মদ ফারুক, নয়ন বড়–য়া, হ্যাপি দাশ, বিমল কান্তি আচার্য, ফটো সাংবাদিক ইমরান সোহেল, মেরিট বাংলাদেশ স্কুল এন্ড কলেজের উপাধ্যক্ষ রাজেশ কান্তি পাল সহ প্রমূখ। সম্মিলনের শুরুতে বাংলাদেমের জাতীয় সংগীত ও ভারতের জাতীয় সংগীত স্ব স্ব কবি কন্ঠে পরিবেশিত হয় এবং অনুষ্ঠান শেষে পশ্চিমবঙ্গ ভারত থেকে আগত প্রখ্যাত তিন কবিকে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের পক্ষে বিশেষ সম্মাননা পুরস্কার ও ক্রেষ্ট প্রদান করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*