চট্টগ্রামে এখনো প্রাথমিক পর্যায়ের বই পুরোপুরি এসে পৌঁছায়নি

top1-1-13
নিউজগার্ডেন ডেস্ক : শিক্ষার্থীদের জন্যে ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গেছে বই উৎসব। কারণ ঘনিয়ে এসেছে বই উৎসবের দিন। নতুন বছর মানেই নতুন বই আর বই উৎসব। তবে বই উৎসবের দিন ঘনিয়ে আসলেও চট্টগ্রাম বিভাগে এখনো প্রাথমিক পর্যায়ের বই পুরোপুরি এসে পৌঁছায়নি। জানা গেছে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মাত্র ৪০ শতাংশ বই এসেছে। তবে মাধ্যমিক পর্যায়ের ৯২ ভাগ বই চলে এসেছে বলে দাবি করেছেন শিক্ষা বিভাগের কর্মকর্তারা। এদিকে বই রাখার গোডাউন না থাকায় বিপুল পরিমাণ নতুন বই নিয়ে বিপাকে পড়তে হচ্ছে সংশ্লিষ্টদের।
গত বছর রাজনৈতিক অস্থিরতার মাঝেও ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে ৯০ শতাংশ বই চলে আসে কিন্তু এবার চিত্র কিছুটা ভিন্ন। বিশেষ করে প্রাথমিক পর্যায়ে ৬০ শতাংশ বই এখনও ঢাকা থেকে বিভাগীয় অফিসে এসে পৌঁছায়নি। এক্ষেত্রে উপজেলা পর্যায়ে পয়লা জানুয়ারির আগে বই পৌঁছানো নিয়ে শঙ্কায় আছেন কর্মকর্তারা।
চট্টগ্রামের প্রাথমিক শিক্ষা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান বিল্লাহ বলেন, চট্টগ্রাম বিভাগের ১১টি জেলার ১শ ৬টি উপজেলার মোট বইয়ের চাহিদা রয়েছে ২ কোটি ২২ লাখ ৭৫ হাজার ২শ ৯৭টি। এর মধ্যে আমরা বই পেয়েছি ৯০ লাখ ৭৬ হাজার ৪শ ৬৬টি।
তবে মাধ্যমিক পর্যায়ে জেলার ৬৬৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জন্য ১ কোটি ৬৩ লাখ ৬৭ হাজার চাহিদা পাঠানো হয়েছিল। এর মধ্যে এখনো পর্যন্ত ঢাকা থেকে ৮ ক্যাটাগরির ১ কোটি ৫১ লাখ বই চলে এসেছে।
চট্টগ্রাম অঞ্চলের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা পরিদপ্তরের উপ-পরিচালক মোহাম্মদ আজিজ উদ্দিন বলেন, ইতোমধ্যে ৯২ শতাংশ বই চলে এসেছে এবং ৯০ শতাংশ বই স্কুলগুলোতে পৌঁছে গেছে। যা পহেলা জানুয়ারি ২০১৫ শিক্ষার্থীদের হাতে পৌঁছে যাবে।
এদিকে, বই রাখার পর্যাপ্ত জায়গা না থাকায় বিপাকে পড়েছেন কর্মকর্তারা। এক্ষেত্রে কেন্দ্রে বই আসার সাথে সাথে তা স্কুলে স্কুলে বিতরণ করে দেয়া হচ্ছে।
চট্টগ্রাম জেলা শিক্ষা অফিসের মনিটরিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ নুরুল হোসাইন বলেন, চাহিদানুযায়ী বই এসেছে। বইগুলো যেহেতু রাখার সমস্যা সেজন্য স্কুলের চাহিদানুযায়ী বইগুলো দিয়ে দেয়া হচ্ছে।
এছাড়া ইবতেদায়ী পর্যায়ে ২৮ লাখ ৫৩ হাজার বইয়ের চাহিদার বিপরীতে এসেছে ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৯২টি বই।
ঢাকা থেকে আসা এসব বই চট্টগ্রাম নগরী, জেলা, উপজেলা পর্যায়ে বিভিন্ন স্কুলে স্কুলে চলে যাচ্ছে। আগামী পহেলা জানুয়ারি বই উৎসবের মধ্য দিয়ে তা তুলে দেয়া হবে শিক্ষার্থীদের হাতে।
সূত্র : আ. স.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*