চট্টগ্রামে এক পোশাক কর্মীর মরদেহ উদ্ধার

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৬, সোমবার: চট্টগ্রাম নগরীর পাঁচলাইশ থানার মোহাম্মদপুর এলাকায় লিপি আক্তার (২৩) নামে এক পোশাক কর্মীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বছরখানেক আগে বিয়ে হওয়া লিপির মরদেহটি একটি তুলার গুদামে সিলিংয়ের সঙ্গে ঝুলানো অবস্থায় পেয়েছে পুলিশ।
সোমবার (১৯ ডিসেম্বর) বেলা ১২টার দিকে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।
লিপি আক্তারের স্বামী জহিরুল ইসলাম ওরফে জয় মাহমুদ চাকরির সূত্রে মালদ্বীপে আছেন। লিপি নগরীর কালুরঘাটে বেইস টেক্সটাইল লিমিটেডের সুইং অপারেটর হিসেবে কর্মরত ছিলেন বলে জানিয়েছেন নগর পুলিশের পাঁচলাইশ জোনের সহকারী কমিশনার (এসি-পাঁচলাইশ) জাহাঙ্গীর আলম।
জাহাঙ্গীর জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগরের বাসিন্দা জয় মাহমুদের স্ত্রী লিপি নগরীর মোহাম্মদপুর এলাকায় মকবুল ডাক্তারের বাড়িতে স্বামীর বড় বোনের সঙ্গে থাকতেন।
রোববার রাত সাড়ে ১০টার দিকে ভাত খাওয়ার পর লিপি তার স্বামীর সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতে বলতে বাসার বাইরে যান। সাড়ে ১১টার দিকে বাসার লোকজন তাকে ঘুমানোর জন্য ডাকেন। কিন্তু তিনি কিছুক্ষণ পর ঘুমাতে যাবেন বলে জানান।
আধাঘণ্টা পর বাসার লোকজন বেরিয়ে দেখেন লিপি যেখানে দাঁড়িয়ে স্বামীর সঙ্গে কথা বলছিলেন সেখানে নেই। আশপাশে খুঁজেও তাকে পাওয়া যাচ্ছিল না। রাতভর খোঁজাখুঁজির পর ভোরে তারা বিষয়টি পুলিশকে জানান। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাসার পাশে একটি ছোট তুলার গুদামের ভেতরে ঝুলন্ত অবস্থায় লিপির মরদেহ খুঁজে পায়।
‘ছোট দোকানের মতো তুলার গুদামটি বন্ধ ছিল। সেটির তালার সঙ্গে লাগানো চেইন টেনে খুলে দরজা ফাঁক করে ভেতরে ঢুকে লিপি। এরপর সিলিংয়ের সঙ্গে দড়ি দিয়ে ফাঁস নেয়। ’ বলেন জাহাঙ্গীর আলম।
তিনি জানান, লিপির পরিবার অভিযোগ করেছে, ননদ ও তার পরিবারের লোকজন তাকে মানসিকভাবে নির্যাতন করত। এজন্য লিপি আত্মহত্যা করতে বাধ্য হয়েছে।

আত্মহত্যা প্ররোচনার অভিযোগে পাঁচলাইশ থানায় মামলা দায়ের হবে বলে জানান এসি জাহাঙ্গীর আলম।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*