চট্টগ্রামের জামালখান সেন্ট মেরিস স্কুলের ভর্তি ফরম বিতরণ

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৬ নভেম্বর: চট্টগ্রামের জামালখান সেন্ট মেরিস স্কুলে কেজিতে ভর্তির জন্য আলো-আঁধারের লুকোচুরি, মশার কামড়, পেটের খিদে কিছুই বাধা হয়নি লাইনে দাঁড়ানো মানুষগুলোর। লাইন ঠিক রাখতে নিজেরাই ‘আগে আসলে আগে’ ভিত্তিতে সিরিয়াল নম্বর দিয়েছেন। কেউ আবার আত্মীয়-স্বজন-বন্ধুকে ডেকে এনেছেন ‘বদলি’ হিসেবে। এভাবেই সকাল হলো। অপেক্ষার প্রহর শেষ হলো সকাল সাতটায়। একেকজনের চোখজোড়া যেন রক্তজবা। তারপর ফরম হাতে ফিরছিলেন হাসিমুখে। রাতভর ক্লান্তির রেশ নেই সেই হাসিতে।
জামালখানের সেন্ট মেরিস স্কুলে কেজিতে ভর্তির ফরম সংগ্রহের জন্য বৃহস্পতিবার শেষবিকাল থেকেই অভিভাবকেরা লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত ফরম দেওয়ার কথা রয়েছে। প্রতিটি ফরমের জন্য নেওয়া হচ্ছে ২০০ টাকা।
উম্মে তাহমিনা মেয়েদের জন্য ফরম হাতে ফিরছিলেন বেলা ১১টার দিকে। উচ্ছ্বসিত কণ্ঠে বললেন, ‘এ স্কুলের সুনাম এক দিনে হয়নি। এখানে পড়াশোনার মান ভালো। সবকিছুতে শৃঙ্খলা আছে। পরিবেশটাও সুন্দর। এখানে মেধা ও মননশীলতার চর্চার মধ্য দিয়ে সন্তান সঠিকভাবে বেড়ে উঠতে পারবে এমন আস্থা রয়েছে। তাই সন্তানের জন্য একটা দিন দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হয়েছে এর জন্য কষ্ট নেই।’Admi
পূর্বমাদারবাড়ি থেকে সকালে ফরম নিতে আসা আবদুল খালেক জানান, প্রতিবছরই শিশুদের জন্য ভালো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচিত সেন্ট মেরিস স্কুলে ফরম দেওয়ার আগের দিনই লাইন পড়ে যায়। সবার ধারণা আগে ফরম নিলে ভর্তির বিষয়ে কিছুটা নিশ্চিন্ত থাকা যায়। যদিও বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ যতক্ষণ লাইন থাকবে ততক্ষণ ফরম দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন।
সকাল সাড়ে ১০টায় কামরুন নাহার রিতা মেয়ের জন্য ফরম নিতে এসে হন্তদন্ত হয়ে ফিরছিলেন খালি হাতে। জানতে চাইলে বললেন, আমি মেয়ের ছবি এনেছি কিন্তু আগের স্কুলের ড্রেস ছাড়া ছবি হলে ফরম দেওয়া হবে না। তাই বাচ্চাকে স্কুলের পোশাক পরিয়ে ছবি তুলতে স্টুডিওতে যাচ্ছি। যদি ভাগ্যে থাকে ফরম নিতে পারবো।admid1
দুপুরে একজন অভিভাবককে দেখা গেল স্কুল ড্রেস ছাড়াই ছবি যুক্ত ফরম নিয়ে বেরোচ্ছেন। আরও কয়েকজন অভিভাবক তাকে ঘিরে ধরেছেন। জানতে চাইলেন স্কুল ড্রেসসহ ছবি ছাড়া ফরম কীভাবে নিলেন। তখন ওই অভিভাবক হাসছিলেন বিজয়ের হাসি।
একজন অভিভাবক জানান, ফরম নেওয়ার সময় অভিভাবকদের বলে দেওয়া হয়েছে রোববার (৮ নভেম্বর) স্কুলের নোটিশ বোর্ডে ভর্তিসংক্রান্ত নির্দেশনা থাকবে। তা ফলো করার জন্য।
সেন্ট মেরিসের গেটে একজন ভর্তি গাইড বিক্রেতা জানান, এবার ভর্তি পরীক্ষা না হলেও মৌখিক পরীক্ষা হতে পারে। তাই এ গাইড শিশুদের কাজে আসবে। তিনি ৮০ টাকায় গাইড ও ৫০ টাকার সাজেসন্স প্রচুর বিক্রি হয়েছে বলে জানান।

Leave a Reply

%d bloggers like this: