ঘরবাড়ি পরিষ্কারের ঘরোয়া উপায়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৩০ জুলাই ২০১৭, রবিবার: শান্তির আবাস হলো আমাদের ঘরবাড়ি। সারাদিনের ব্যস্ততার পর বাসায় ফিরে সবাই চায় একটু শান্তি। এক্ষেত্রে সুন্দর ঝকঝকে এবং পরিচ্ছন্ন ঘরবাড়ির কোন বিকল্প নেই। অনেকেই আছেন যারা ঘরবাড়ি পরিষ্কার বাজারের নানা ধরণের ক্লিনার ব্যবহার করেন। এসব ক্লিনার দিয়ে ঘর পরিষ্কারে লাভের চেয়ে বরং ক্ষতিই হয় বেশি। কারণ এ ধরনের ক্লিনারে ক্ষতিকারক টক্সিক কেমিক্যাল থাকে, যা থেকে দূষণ ছড়াতে পারে। এমনকি, এসব কেমিক্যালের প্রভাব আপনার শরীরেও পড়তে পারে। আবার ঘরবাড়ি নিয়মিত পরিষ্কারে এসব ক্লিনার ছাড়াও কোন গতি নেই। এক্ষেত্রে ক্ষতি এড়াতে আপনি ঘরোয়া উপায়ে ঘরবাড়ি পরিষ্কার রাখতে পারেন।
ঘরবাড়ি পরিষ্কারের ঘরোয়া উপায়-
বাথরুম
বাথরুমের মেঝে পরিষ্কার করা অনেক সময়ই বেশ ঝামেলার কাজ বটে। এজন্য মেঝের সেরামিক টাইলসের কড়া দাগছোপ ওঠাতে ভিনিগারের সঙ্গে বেকিং সোডা মিশিয়ে নিন। এবার তা মেঝেতে ছড়িয়ে কিছুক্ষণ রাখার পর পানি দিয়ে মেঝে ধুয়ে নিন। এবার একটি শুকনো কাপড় দিয়ে বাথরুমের মেঝে মুছে নিন।
জানালার কাচ
জানলার কাচের ধুলোময়লা তাড়াতে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন অ্যামোনিয়ার মিশ্রণ। ১০ ভাগ জলে এক ভাগ অ্যামোনিয়া মিশিয়ে সেই মিশ্রণ দিয়ে কাচের জানালা ঘষে নিন। এবার একটি পেপার টাওয়েল দিয়ে ভালো করে কাচ মুছে নিন। আলু দিয়েও কাচ পরিষ্কার করতে পারেন। এক্ষেত্রে একটি আলু কেটে কাচের উপর ঘষে নিন। এরপর শুকনো কাপড় দিয়ে জানালার কাচ মুছে নিন।
ঘরের মেঝে
আপনার ঘরের মেঝে পরিষ্কার করতে বাড়িতে বানাতে পারেন ফ্লোর ক্লিনার। মেঝে কাঠের হলে ভিনিগারের মিশ্রণ দিয়ে তা পরিষ্কার করুন। এক লিটার জলে ১/৪ কাপ ভিনিগার মিশিয়ে নিন। ব্যস! ফ্লোর ক্লিনার রেডি। তবে টাইলসের মেঝে হলে ওই মিশ্রণে ঠান্ডা পানির বদলে ব্যবহার করুন ফুটন্ত গরম পানি।
ওয়াশিং মেশিন
ওয়াশিং মেশিনের আয়ু বাড়াতে তা সব সময় পরিষ্কার রাখুন। এর মধ্যে ৮০ গ্রাম সাইট্রিক অ্যাসিড ঢেলে তা চালিয়ে দিন। দেখবেন মেশিনের সমস্ত ময়লা দূর হয়ে গেছে।
আয়না
আয়না ঝকঝকে রাখতে জানলার কাচের মতোই অ্যামোনিয়ার মিশ্রণ কাজে লাগাতে পারেন। তবে সেই মিশ্রণে ঢেলে দিন দু’টেবল চামচ অ্যালকোহলও। এবার তা আয়নায় স্প্রে করে একটি শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন।
কাটিং বোর্ড
শাকসবজি কাটার পর কাটিং বোর্ডে অনেক সময়ই বেশ দাগছোপ পড়ে যায়। ওই দাগছোপ ওঠাতে একটি লেবু কেটে কাটিং বোর্ডের উপর তা ঘষে নিন। এবার তার উপর খানিকটা লবণ ছড়িয়ে দিন। ৫-১০ মিনিট সে ভাবেই রেখে ফের মুসাম্বি ঘষে নিন। এরপর গরম পানিতে কাটিং বোর্ডটি ধুয়ে নিন। দেখবেন, সব দাগছোপ গায়েব হয়ে গেছে।
কার্পেট
বাড়িতে কার্পেট থাকলে তাতে সহজেই ধুলোময়লা জমে যায়। এক্ষেত্রে কার্পেট পরিষ্কার রাখতে তার উপর খানিকটা বেকিং সোডা ও কর্নস্টার্চ ছড়িয়ে দিন। মিনিট ১৫ রেখে কার্পেটের উপর ভ্যাকুয়াম ক্লিনার চালিয়ে নিন। এতে কার্পেটের ধুলোময়লা ছাড়াও দুর্গন্ধ দূর হবে।
ফ্রিজ
ফ্রিজের ভিতরের দুর্গন্ধ তাড়াতে জলের মধ্যে লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এতে খানিকটা বেকিং সোডাও মেশাতে পারেন। এবার সেই মিশ্রণ দিয়ে ফ্রিজ পরিষ্কার করুন। দুর্গন্ধ তো দূর হবেই, সেইসঙ্গে ফ্রিজও থাকবে ঝকঝকে।
শাওয়ার টাইলস ও কাচের দরজা
বাথরুমের মেঝের মতোই শাওয়ার এরিয়ার টাইলস ও কাচের দরজায় জলের দাগ বসে যায়। ওই দাগ ওঠাতে একটি টুথব্রাশে সামান্য বেকিং সোডা মাখিয়ে তা দিয়ে টাইলস ও কাচের দরজায় ঘষতে থাকুন। খানিকক্ষণ রেখে পানি দিয়ে ধুয়ে নিন। এরপর সপ্তাহে এক বার একটি লেবু কেটে তা দিয়ে টাইলস ও কাচের দরজা ঘষে নিন। ১০-১৫ মিনিট সে অবস্থায় রেখে জল দিয়ে ধুয়ে নিন। শাওয়ার টাইলস ও কাচের দরজা দেখাবে নতুনের মতো।
মাউক্রোওয়েভ ওভেন
মাউক্রোওয়েভ ওভেনে পরিষ্কার করতে বেকিং পাউডারের মিশ্রণ খুবই কাজে আসে। এক কাপ বেকিং সোডার সঙ্গে আধ কাপ জল মিশিয়ে সেই মিশ্রণটি ওভেনের ভিতরে মিনিট ১৫ মাখিয়ে রাখুন। এরপর একটি ভেজা কাপড় দিয়ে ভাল করে মুছে নিন। এবার ওভেনে হোয়াইট ভিনিগার স্প্রে করে মিনিট ১৫ রেখে একটি শুকনো কাপড় দিয়ে তা মুছে ফেলুন। ওভেন থাকবে ঝকঝকে পরিষ্কার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*