‘গ্লোবাল গোলকিপার’ পুরস্কার মোদিকে, সমালোচনার ঝড় বিশ্বে

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ইংরেজী, রবিবার: ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ‘গ্লোবাল গোলকিপার’ পুরস্কারে ভূষিত করায় বিশ্বে নিন্দার ঝড় বইছে। মানবাধিকারকর্মী, আইনজীবীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ নরেন্দ্র মোদিকে এ পুরস্কার না দেয়ার দাবি জানিয়েছেন। গত সোমবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী দপ্তরের কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এক টুইট বার্তায় জানান, প্রধানমন্ত্রী মোদিকে গেটস ফাউন্ডেশন ‘গ্লোবাল গোলকিপার’ পুরস্কারে ভূষিত করবে। মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস এবং তার স্ত্রী মেলিন্ডা গেটস ২০০০ সালে এই ফাউন্ডেশন চালু করে। এর আর্থিক মূল্য প্রায় ৫০ বিলিয়ন ডলারের বেশি।

মার্কিন গণমাধ্যম ওয়াশিংটন পোস্টে ‘নরেন্দ্র মোদিকে গেটস ফাউন্ডেশনের পুরস্কার অবশ্যই দেয়া উচিত নয়’ শিরোনামে একটি লেখা প্রকাশ করেছে। আইনজীবী সুচিত্রা বিজয়ন এবং অর্জুন সিং শেঠি লেখাটি লিখেন।

প্রতিবেদনে তারা লিখেন, গত কয়েক মাস যাবত কাশ্মীর এবং ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামে ক্রমাগত নির্যাতনের কারণে মোদিকে এই পুরস্কার দেয়া অবশ্যই উচিত নয়। মোদি সংখ্যালঘুদের নির্যাতন এবং জনগণের বাক-স্বাধীনতা হরণ করছে।

উভয়ের দাবি, ‘প্রত্যেক প্রাণীর সমান মূল্য’এই বাক্য গেটস ফাউন্ডেশনের ওয়েবসাইটে লেখা আছে। মোদিকে এই পুরস্কার দেয়ার অর্থ হচ্ছে প্রত্যেক মানুষকে দেয়া প্রতিশ্রুতির সঙ্গে ফাউন্ডেশনের প্রতারণা করা।

ইতিমধ্যে, ওয়াশিংটন পোস্টের প্রতিবেদনটি বিশ্বে সামাজিক মাধ্যমসহ মানবাধিকারকর্মী, আন্তর্জাতিক রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং রাজনীতিবিদদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে।

নিউইয়র্কভিত্তিক মানবাধিকার বিষয়ক ‘হিউম্যান রাইটস ওয়াচ’ এর নির্বাহী পরিচালক কেনথ রথ এক টুইট বার্তায় লিখেন, ভারত অধিকৃত কাশ্মীরের মুসলমানদের কঠোর হাতে দমন করা, আসামে অনেক মানুষ নাগরিকত্ব হারিয়েছে এবং দেশজুড়ে ব্যাপক সহিংস নির্যাতন চলছে। এই পরিস্থিতিতে কেন মোদিকে সম্মান জানানোর জন্য পুরস্কার দেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে গেটস ফাউন্ডেশন? পাকিস্তানের রাজনীতিবিদ আলি হায়দার জাইদি মোদিকে এক টুইটে ‘পূর্বের হিটলার’ নামে আখ্যা দিয়েছেন।
অন্যদিকে, গেটস ফাউন্ডেশনের পুরস্কার গ্রহণ না করতেও মোদির প্রতি আহ্বান জানিয়েছে অনেক সংগঠন। ভারতের আরএসএস এর অধিভুক্ত ‘স্বদেশি জাগরণ মঞ্চ’ নামক সংগঠনের সহ-আহ্বায়ক অশ্বনী মহাজেন পুরস্কার গ্রহণ না করার আহ্বান জানিয়ে এক টুইটে অভিযোগ করেন, গেটস ফাউন্ডেশন মানবতার আড়ালে তাদের ব্যবসায়িক স্বার্থ হাসিল করছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যে অনৈতিকভাবে মেডিকেল ট্রায়ালের অভিযোগও রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*