গুণে সেরা কালোজিরা

নিউজগার্ডেন ডেস্ক : দারুণ উপকারী কালিজিরা। তাই একে খাদ্য না বলে পথ্য বলাটাই ঠিক। কালোজিরাকে আমরা কে না জানি? নামে জিরা হলেও আসলে কিন্তু স্বাদে গন্ধে জিরার সঙ্গে এর কোন মিল নেই। আর ব্যবহারও জিরার মতো নয়। ইংরেজিতে কালো জিরা “Nijella seednijella” নামে পরিচিত। বাঙালির পাঁচফোড়ন থেকে শুরু করে সিঙ্গারা আর নানান রকম ভর্তায় কালোজিরা না হলে কি চলে? আয়ুর্বেদিক, ইউনানি ও কবিজারি চিকিৎসাতেও কালো জিরার ব্যাপক ব্যবহার হয়ে থাকে। মসলা হিসেবেও এর চাহিদা অনেক। কালো জিরার বিজ থেকে তেল পাওয়া যায়, যা মানব শরীরের জন্য খুব উপকারি। এতে আছে ফসফেট, লৌহ, ফসফরাস। এছাড়া এতে রয়েছে ক্যানসার প্রতিরোধক ক্যারটিন, বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধকারী উপাদান এবং অম্ল রোগের প্রতিষেধক। আসুন জেনে নেয়া যাক কালো জিরার ঔষধি গুণাগুণগুলো : ১) কালো জিরার তেল মাথা ব্যাথা সারাতে দারুন উপকারী। কালো জিরার তেল কপালে মালিশ করলে এবং তিন দিন খালি পেটে ১ চা চামচ তেল খেলে আরোগ্য লাভ করা যায়। ২) চুল শ্যাম্পু করার পর শুকিয়ে নিন। এবার পুরো মাথায় কালো জিরার তেল ভাল মতো লাগান । এক সপ্তাহ নিয়মিত করলে চুল পড়া অনেক কমে যাবে। ৩) যাদের হাঁপানির সমস্যা আছে তারা বুকে ও পিঠে কালো জিরার তেল মালিশ করতে পারেন, উপকার পাবেন। ৪) কালো জিরার তেল ও চূর্ণ ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী। নিয়মিত সেবনে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকে। ৫) চা বা গরম পানির সঙ্গে কালো জিরার তেল মিশিয়ে পান করলে হৃদরোগে যেমন উপকার পাওয়া যায় তেমনি শরীরের বাড়তি মেদও কমে। ৬) এক কাপ দুধ ও ১ চা চামচ কালো জিরা তেল একসাথে মিশিয়ে দৈনিক পান করুন। পেটে গ্যাসের সমস্যা থাকলে তা কমে যাবে। ৭) যাদের উচ্চ রক্তচাপ আছে তারা দৈনিক কোন না কোনভাবে কালো জিরা সেবনের চেষ্টা করুন, কারণ কালো জিরা রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। গরম ভাতের সাথেও কালো জিরার ভর্তা খেতে পারেন। ৮) ছুলি বা শ্বেতী হলে আক্রান্ত স্থানে আপেলের টুকরো দিয়ে ঘষে নিন, তারপর কালো জিরার তেল লাগান। এভাবে ১৫ দিন থেকে ১ মাস পর্যন্ত লাগান। ৯) কালো জিরা নারী ও পুরুষে উভয়ের যৌন ক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। বিশেষ করে পুরুষদের জন্য খুব উপকারি। নিয়মিত কালো জিরা সেবনে পুরুষত্বহীনতা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। ১০) জ্বর হলে সকাল-সন্ধ্যায় লেবুর রসের সঙ্গে কালো জিরার তেল পান করুন। জ্বর দ্রুত সেরে যাবে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: