গরমে ‘হিট স্ট্রোকের’ লক্ষণ ও করণীয়

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ০৯ মে: তীব্র গরমে মানুষের প্রাণ যেন ওষ্ঠাগত হয়ে এসেছে। বাড়ি থেকে বাইরে বের হওয়ার কথা ভাবলেই গায়ে যেন জ্বর এসে যাচ্ছে। অতিরিক্ত গরমে অনেক সময়ই ঘটে যাচ্ছে ‘হিট স্ট্রোকের’ মতো ঘটনা। তীব্র গরমে ‘হিট স্ট্রোকের’ লক্ষণ ও প্রতিকারের সমাধান তুলে ধরা হলো। হিট স্ট্রোক কীভাবে হয়?
গরমে মানুষের শরীর ঘামতে শুরু করে। ঘাম বাষ্পীভূত হয়ে শরীরকে শীতল করে। ওই সময়ে শরীরে যথেষ্ট পানি সঞ্চিত না থাকলে তা গরম হয়ে উঠবে। পাশাপাশি শরীরে ঘাম হওয়ার ক্ষমতা কমে যাবে। এক পর্যায়ে শরীরে পানি স্বল্পতায় হিট স্ট্রোকের সম্ভাবনা রয়েছে।Heat-Strock
হিট স্ট্রোক হওয়ার আশঙ্কা যাদের
শিশু ও বৃদ্ধদের শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের ক্ষমতা কম। তাই তাদের হিট স্ট্রোক হতে পারে। এ ছাড়া ডায়াবেটিস ও একটোডার্মাল ডিসপ্লেসিয়া (চর্মজাতীয় রোগ) রোগীদের হিট স্ট্রোকের প্রবল আশঙ্কা রয়েছে। পাশাপাশি অ্যান্টিহিস্টামিন, অ্যাসপিরিন, মানসিক রোগের ওষুধ গ্রহণকারীদের হিট স্ট্রোকের আশঙ্কা রয়েছে।
হিট-স্ট্রোকের লক্ষণ
১. অজ্ঞান হয়ে যাওয়া।
২. প্রচণ্ড মাথা ব্যথা।
৩. প্রচণ্ড গরম থাকা সত্ত্বেও ঘাম না হওয়া।
৪. স্কিন লাল, গরম এবং শুকনো হয়ে যাওয়া।
৫. বমি-বমি ভাব বা বমি হওয়া।
৬. তন্দ্রাচ্ছন্ন ভাব।
৭. মাংসপেশিতে ব্যথা।
৮. হঠাৎ করে হার্ট বিট বেড়ে যাওয়া।
৯. অঙ্গপ্রত্যঙ্গ বিকল হতে শুরু করে।
১০. রক্তচাপ কমতে থাকে।
১১. শ্বাস-প্রশ্বাসে ব্যাঘাত ঘটে।
১২. প্রস্রাব বন্ধ হয়ে যায়।
১২. শরীরের বিভিন্ন জায়গা থেকে রক্তক্ষরণ হওয়া।
হিট স্ট্রোকের প্রতিকার
১. প্রচুর পরিমাণ পানি পান করুন।
২. সম্ভব হলে খোলা হাওয়ায় কাজ করুন।
৩. ঢিলেঢালা হালকা সুতির পোশাক পরুন।
৪. দিনে দুবার গোসল করতে পারেন।
৫. রোদে গেলে ছাতা ব্যবহার করুন।
৬. শিশু ও বৃদ্ধরা সতর্ক হন।
৭. প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে সতর্ক হন।
৮. অ্যালকোহল ও ক্যাফেইন এড়িয়ে চলুন।
৯. বেশি ব্যায়াম না করা।
হিটস্ট্রোক হলে করণীয়
১. আক্রান্ত ব্যক্তিকে ঠাণ্ডা অথবা ছায়ায় নিয়ে যাওয়া।
২. পানি বা পানীয়জাতীয় কিছু পান করাতে হবে।
৩. আবদ্ধ জায়গায় না রেখে খোলা পরিবেশে রাখা।
৪. খোলা পরিবেশ না পেলে জোরে জোরে বাতাস করা।
৫. পারলে মাথায়, গলায় ও ঘাড়ে পানি দিতে হবে বা মুছে দিতে হবে।
৬. তাৎক্ষণিক বরফ পাওয়া গেলে বগলের নিচে ধরে রাখতে হবে।
৭. দুই পা ওপরে তুলে ধরতে হবে।
৮. শরীরের তাপমাত্রা কমানোর ব্যবস্থা করতে হবে।
৯. আক্রান্ত ব্যক্তিকে যত দ্রুত সম্ভব হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*