গণতন্ত্র হত্যা করে আ’লীগ স্বাধীনতার প্রকৃত চেতনাকে কুক্ষিগত করে রেখেছে: আ স ম রায়হান

নিউজগার্ডেন ডেস্ক, ২৬ মার্চ ২০১৯ ইংরেজী, মঙ্গলবার: বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবির’র কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য ও চট্টগ্রাম মহানগর উত্তর সভাপতি আ স ম রায়হান বলেন তৎকালীন পাকিস্তানী শাসকের নির্যাতন-নিপীড়ন আর বঞ্চনা থেকে মানুষের অধিকার আদায় করার জন্য দেশের আপামর ছাত্র-জনতা অস্ত্র হাতে যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। দীর্ঘ ৯ মাস সশস্ত্র সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আমরা শত্রু মুক্ত হয়ে স্বাধীন জাতি হিসেবে পথ চলা শুরু করি। আমাদের স্বাধীনতার মূল স্বপ্নই ছিল একটা গণতান্ত্রিক বাংলাদেশ। সেই স্বপ্ন আজ কেড়ে নিয়েছে জাতির ঘাড়ে জগদ্দল পাথরের মতো চেপে বসা জবর দখলকারী ফ্যাসিবাদী সরকার।গণতন্ত্রের ঠুঁটি চেপে ধরে তারা জনগণের ভোটের অধিকার, স্বাধীন মত প্রকাশের অধিকার, ন্যায় বিচার পাওয়ার অধিকার কেড়ে নিয়েছে। প্রতিনিয়ত এদেশের নিরপরাধ নাগরিকদের গুম, খুন, হত্যার শিকার হতে হচ্ছে। চোখের পানিই যেন নিত্য সঙ্গী হয়েছে হাজারো মা-বাবা, স্ত্রী, ভাই-বোন ও সন্তানের। বিরোধী মত ও পথের কেউই নিরাপদে বেঁচে থাকার কোন গ্যারান্টি পাচ্ছে না। এমন রুদ্ধশ্বাস পরিস্থিতি থেকে উত্তরণের একটি মাত্র উপায় স্বাধীনতার চেতনাকে বুকে ধারণ করে আত্মত্যাগের মন্ত্রে বলীয়ান হয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে অধিকার আদায়ের লড়াইয়ে। নিশ্চিত করতে হবে জনগণের ভোটের অধিকার, বাক স্বাধীনতা ও বেঁচে থাকার স্বাভাবিক গ্যারান্টি।
৪৮তম মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগরী উত্তর শিবিরের বর্ণাঢ্য র‌্যালী পরবর্তী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি আজ (২৬/০৩/’১৯) এসব কথা বলেন। র‌্যালীতে নগর উত্তর সেক্রেটারী হাসান ইলাহী, শিবির নেতা এম ইউ হামীম, আশরাফুল আলম সহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা নেতৃত্ব দেন।
প্রধান অতিথি বলেন দেশে চলমান বিভেদের রাজনীতি জাতির এগিয়ে যাওয়ার পথে প্রধান অন্তরায়। ক্ষমতাসীনরা পক্ষ-বিপক্ষের ধোঁয়া তুলে প্রকৃত পক্ষে আমাদেরকে এক গভীর অনিশ্চয়তার দিকে ধাবিত করেছে। আধিপত্যবাদী শক্তির দোসররা ক্ষমতার গদি টিকিয়ে রাখতে তাদের প্রভুদের দেয়া নীল-নকশা বাস্তবায়ন করে জাতিকে দাসত্বের দিকে নিয়ে যাচ্ছে যা পরিকল্পিত জাতি বিনাশী ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়। র‌্যালীটি নগরীর বহদ্দারহাট থেকে শুরু হয়ে মোহাম্মদপুর এলাকায় গিয়ে সমাবেশের মাধ্যমে শেষ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*